‘প্রতিবন্ধীরা সুযোগ পেলে পরিবারের আশা জাগাতে পারে’

প্রকাশ:| সোমবার, ১৩ জুন , ২০১৬ সময় ০৬:১৩ অপরাহ্ণ

প্রতিবন্ধীরা
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সমাজকল্যান মন্ত্রনালয়ের অধীনে চট্টগ্রাম শহর ১, ২ ও ৩ কার্যালয় এবং চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের আয়োজনে ১৩ জুন সোমবার দুপুরে নগর ভবনের কে বি আবদুচ ছত্তার মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নগরীর প্রতিবন্ধিদের মাঝে সুবর্ন স্মার্ট কার্ড ও ভাতার পাশবই বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মো. শফিউল আলম। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন।এতে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র নিছার উদ্দিন আহমদ মঞ্জু, সমাজ কল্যাণ স্থায়ী কমিটির সভাপতি হাবিবুল হক, ২৫ নং রামপুরা ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. এরশাদ উল্লাহ, সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর মিসেস আবিদা আজাদ, সমাজ সেবা অধিদপ্তর চট্টগ্রামের উপ পরিচালক বন্দনা দাশ, লায়ন রফিক আহম্মদ, লায়ন মোরশেদ হোসেন, সহকারী পরিচালক ফরিদুল আলম, সমাজ সেবা কর্মকর্তা কামরুল পাশা ভূইয়া বক্তব্য রাখেন। প্রতিবন্ধিদের মাঝে ভাতা ও স্মার্ট কার্ড বিতরণ করেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।প্রতিবন্ধীরা ২ প্রধান অতিথি’র ভাষনে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা’র সরকার সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে প্রতিবন্ধিদের সুরক্ষায় আইন করে তাদের পূর্নবাসনে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। তিনি বলেন, সমগ্র বাংলাদেশে জরিপ পরিচালনা করে প্রতিবন্ধিদের সংখ্যা নিরুপণ করা হয়েছে। মেয়র বলেন, পরিসংখ্যান মতে চট্টগ্রাম শহরে প্রায় ৫৮ হাজার প্রতিবন্ধি বসবাস করে তন্মোধ্যে ১৮৬৬ জনের মধ্যে ভাতার পাশ বই এবং ৯৬৫৭ জনের মধ্যে সূবর্ন স্মার্ট কার্ড বিতরণ করা হয়। প্রসঙ্গক্রমে মেয়র বলেন, সরকার প্রতিবন্ধিদের মাসিক ভাতা ৫ শত টাকা দিচ্ছে। এ ছাড়া স্মার্টকার্ড ধারী প্রতিবন্ধিদের প্রাথমিক শিক্ষার জন্য মাসে ৪ শত, মাধ্যমিক শিক্ষার জন্য ৫ শত, উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষার জন্য ৬ শত, ¯œাতক শিক্ষার জন্য ৭ শত এবং বিশ্ববিদ্যালয় সহ উচ্চ শিক্ষার জন্য মাসিক ১২ শত টাকা শিক্ষা ভাতা পাচ্ছেন। এছাড়া শহর এলাকায় বয়স্ক ভাতা সহ নানামূখী সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী গড়ে তুলেছে সরকার, মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন চট্টগ্রাম শহর সমাজ সেবার কার্যক্রম সহজে পরিচালনার লক্ষে ভবন নির্মান এবং শহর এলাকায় বিধবা ভাতা প্রণয়নের দাবী সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করার কথা জানান। মেয়র বলেন, প্রতিবন্ধিরা সুযোগ পেলে নিজ পায়ে দাঁড়িয়ে পরিবারের আশা জাগাতে পারে। প্রতিবন্ধিদের অভিশাপ মনে না করে তাদের প্রতি সদয় হয়ে দেখাশুনার আহবান জানান মেয়র।