প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর মাকে হত্যার মামলায় আ.লীগ নেতা কারাগারে

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১৮ ডিসেম্বর , ২০১৫ সময় ১১:৩৬ অপরাহ্ণ

ময়মনসিংহের গফরগাঁও পৌরসভা নির্বাচনের তিন নম্বর ওয়ার্ডের এক কাউন্সিলর প্রার্থীর মাকে হত্যার অভিযোগে একই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী আনিসুল হকসহ ১৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। আজ শুক্রবার ওই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আনিসুলকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ।

আনিসুল গফরগাঁও পৌরসভার তিন নম্বর ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের সভাপতিও। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি গত বুধবার সাঙ্গপাঙ্গ নিয়ে একই ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও কাউন্সিলর প্রার্থী আজিজুল হকের মাকে মারধর করে হত্যা করেছেন।
এ ঘটনায় গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে আনিসুলসহ ১৯ জনের বিরুদ্ধে গফরগাঁও থানায় একটি মামলা করেন আজিজুল। মামলার পর পুলিশ আনিসুলকে গ্রেপ্তার করে।
গফরগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তোফাজ্জল হোসেন , আজ শুক্রবার সকালেই আনিসুল হককে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
ওসি আরও বলেন, মারধরের ঘটনায় গতকাল বৃহস্পতিবার আনিসুলের ভাতিজা ইকবাল ও ভাগ্নে সোহাগকে আটক করে পুলিশ। পরে গতকাল তাঁদের ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়। এরপর হত্যা মামলা হলে সেখানে আসামি হিসেবে ইকবাল ও সোহাগকেও আসামি করা হয়। হত্যা মামলায় ইকবাল ও সোহাগকেও গ্রেপ্তার দেখানো হবে বলে জানান ওসি।
আজিজুলের পরিবারের ভাষ্য, গত বুধবার দুপুরে বিজয় দিবস উপলক্ষে মিছিলে নেতৃত্ব দেওয়াকে কেন্দ্র করে আজিজুল ও আনিসুলের সমর্থকদের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এর জের ধরে আনিসুলের সমর্থকেরা আজিজুলের বাড়িতে হামলা করেন এবং আজিজুলের মা রাবেয়াসহ বাড়ির নারীদের মারধর করেন। মারধরে রাবেয়া আহত হয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। ওই দিন রাত সাড়ে নয়টার দিকে নিজ বাড়িতে তিনি মারা যান।


আরোও সংবাদ