প্যারাসিটামলে জ্বর না কমলে এন্টিবায়োটিক প্রয়োগ করতে হয়

প্রকাশ:| সোমবার, ১১ আগস্ট , ২০১৪ সময় ১১:০৩ অপরাহ্ণ

প্যারাসিটামলে জ্বর না কমলে এন্টিবায়োটিক প্রয়োগ করতে হয় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান।
আবদুল্লাহ আল নোমান
তিনি বলেন,সরকার অহিংস আন্দোলনের পথও যদি রুদ্ধ করে দেয় তাহলে জনগণই আন্দোলনের গতিপথ ঠিক করে দেবে । ঠিক তেমনিভাবে গণআন্দোলনে সরকার যদি পদত্যাগ না করে তাহলে গণঅভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতা ছাড়তে বাধ্য করা হবে।

সোমবার বিকেলে পাহাড়তলী এলাকায় এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। সাগরিকা কমিউনিটি সেন্টারে দক্ষিণ কাট্টলী ওয়ার্ড বিএনপির ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

গণআন্দোলন কখনো ব্যর্থ হয় না উল্লেখ করে নোমান বলেন, ৫ জানুয়ারি প্রহসনের নির্বাচনের বিরুদ্ধে যে আন্দোলন সংগঠিত হয়েছিল তাতে বিএনপি জয়ী হয়েছে। আর আওয়ামী লীগ রাজনৈতিকভাবে দেওলিয়া হয়ে গেছে। বিএনপির আন্দোলনে সাড়া দিয়ে দেশের ৯৫ শতাংশ জনগণ সেই নির্বাচন বয়কট করেছে। এটাই হচ্ছে আন্দোলনের সফলতা।

ঈদ পুনর্মিলনী উদযাপন কমিটির আহবায়ক সাইফুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য ও নড়াইল জেলা বিএনপির সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, দক্ষিণ কাট্টলী ওয়ার্ড বিএনপি নেতা বদিউল আলম খান, জসীম উদ্দীন জিয়া, নুর সেলিম, রফিকুল মাওলা, কামাল উদ্দীন, এসকান্দর মির্জা প্রমুখ বক্তব্য রাখেন


মিথ্যা মামলা দিয়ে চার্জ গঠন করে বিএনপির গণতন্ত্র উদ্ধারের সংগ্রামকে বন্ধ করতে পারবে না- শাহাদাত

অন্য এক সমাবেশে মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডাঃ শাহাদাত হোসেন বলেছেন, মিথ্যা মামলা দিয়ে চার্জ গঠন করে বিএনপির গণতন্ত্র উদ্ধারের সংগ্রামকে বন্ধ করতে পারবে না। দেশের মানুষের ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠিত না হওয়া পর্যন্ত বিএনপি এদেশের জনগণকে সাথে নিয়ে আন্দোলন চালিয়ে যাবে।

আজ বিকেল চারটায় নগরীর নয়া বাজার বিশ্বরোডে চট্টগ্রাম মহানগর তৃণমূলদলের উদ্যোগে আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমানসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলায় চার্জ গঠনের প্রতিবাদে এ বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করা হয়।

আন্দোলনের ভয়ে বিএনপি নেতাদের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করছে অভিযোগ করে ডাঃ শাহাদাত বলেন, মামলা দিয়ে চার্জ গঠন করে বিএনপির গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে বাধাগ্রস্থ করার যে কৌশল অবলম্বন করছে সরকার এখন জনগণ তা বুঝতে পেরেছে। তাই মামলা-হামলা, নির্যাতন করে বিএনপি’র গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে ঠেকানো যাবে না।

মহানগর তৃণমূল দলের আহ্বায়ক মোঃ কামরুজ্জামান তারেকের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- পাহাড়তলী থানা বিএনপির আহ্বায়ক কমিশনার শামসুল আলম, নগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন দিপ্তী।

প্রতিবাদ সমাবেশে আনও বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহসাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম, নগর ছাত্রদলের সভাপতি গাজী মোঃ সিরাজ উল্লাহ, ছাত্রদল নেতা নকীব উদ্দিন ভূঁইয়া প্রমুখ।