পেশাদার ছিনতাইকারী চক্রের দলনেতা বরিশাইল্লা কাদের সহযোগীসহ গ্রেপ্তার

প্রকাশ:| শনিবার, ২৩ নভেম্বর , ২০১৩ সময় ০৯:০৬ অপরাহ্ণ

নগরের পেশাদার ছিনতাইকারী চক্রের দলনেতা বরিশাইল্লা কাদের (২৮) ও তার সহযোগী নজরুলকে (৩০) অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।অস্ত্রসহ ছিনতাইকারী চক্রের ২ সদস্য

শনিবার সকালে নগরের বড়পোল এলাকার মনসুর মার্কেট থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে বন্দর থানার পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে ছিনতাইয়ের কাজে ব্যবহৃত একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা, দেশীয় একনলা বন্দুক, তিনটি কার্তুজ, একটি চাপাতি ও দুটি ছোরা উদ্ধার করা হয়।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহিদুল ইসলাম জানান, কাদেরকে গ্রেপ্তার করতে শনিবার ভোরে বন্দর থানা পুলিশের দুটি দল সিটি গেট, অলংকার, বড়পোল এসব এলাকায় টহল দিতে শুরু করে। শনিবার ভোর সোয়া ৬টার দিকে সিএনজি অটোরিকশার নম্বর মিলিয়ে কাদের ও তার তিন সহযোগীকে পুলিশ সিটি গেট থেকে ধাওয়া শুরু করে। বড়পোল এলাকার মনসুর মার্কেটের সামনে সিএনজি অটোরিকশাটি উল্টে গেলে পুলিশ বরিশাইল্লা কাদের ও নজরুলকে আটক করে। তবে কাদেরের বাকি দুই সহযোগী পালিয়ে যায়।

ওসি জানান, কাদের ও তার সহযোগীরা সাধারণত ভোর ৪টা থেকে সকাল ৮টার মধ্যে ছিনতাই করে আসছিলেন। বিশেষ করে নৈশকোচ থেকে নামা যাত্রী, সকালে অফিসগামী রিকশাযাত্রীরা তাদের টার্গেটে পরিণত হতেন। সিএনজি অটোরিকশা থেকে হ্যাঁচকা টানে ব্যাগ ছিনতাই করতেন তারা। অস্ত্রের মুখে পথচারীকে জিম্মি করেও ছিনতাই করতেন। খুলশী, পাঁচলাইশ, কোতোয়ালিসহ বিভিন্ন থানায় কাদেরের নামে ছয় থেকে সাতটি মামলা রয়েছে।

জাহেদুল ইসলাম জানান, কাদেরের পালিয়ে যাওয়া দুই সহযোগীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। গ্রেপ্তার হওয়া দুজনের বিরুদ্ধে ডাকাতির প্রস্তুতি এবং অস্ত্র ও বিস্ফোরক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে দুটি মামলা হয়েছে।

তিনি আরো জানায়, নগরের ছিনতাইকারী চক্রের প্রধান কাদের কিছুদিন আগে কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি পান। এরপর শহরে ছিনতাইয়ের ঘটনা বেড়ে যায়। বেশ কিছু অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ বরিশাইল্লা কাদের ও তার সহযোগীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালিয়ে শনিবার সফল হয়।