পেকুয়ায় স্কুলের টয়লেট পরিস্কার করলেন চেয়ারম্যান

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ৭ আগস্ট , ২০১৮ সময় ০৫:৫৫ অপরাহ্ণ

মো: ফারুক, পেকুয়া:

শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিম। কক্সবাজার জেলার পেকুয়া উপজেলার মগনামা ইউনিয়নের সিকদার বাড়ির অলী উল্লাহ চৌধুরীর সন্তান। বিগত ইউপি নির্বাচনে রেকর্ড সংখ্যক ভোটে মগনামা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। অল্প বয়সে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় পর নানা প্রতিকূলতার মধ্যে পরিপক্ষ চেয়ারম্যান হিসাবে পরিচিতি লাভ করেছেন। ইতিমধ্যে গ্রামীণ সড়ক অবকাঠামো উন্নয়ন থেকে শুরু করে শাষন ব্যবস্থায় নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করায় সুশীল সমাজের সুনাম কুড়িয়েছেন।

সর্বশেষ মগনামা উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন শিক্ষক শিক্ষার্থীদের জন্য নির্ধারিত টয়লেট নিজ হাতে পরিস্কার করার কিছু ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ ছবি ভাইরাল হওয়ার পর থেকে বিভিন্নজন মতামত প্রকাশ করেছেন। দলমত নির্বিশেষে বেশিরভাগ মতামতে এ ঘটনায় অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত হিসাবে উল্লেখ করেছেন।

জানা গেছে, মগনামা উচ্চ বিদ্যালয় শিক্ষা ক্ষেত্রে যেমন পিছিয়ে তেমনি শিক্ষার পরিবেশ নিয়ে শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকাবাসীর মাঝে চরম ক্ষোভ ছিল। নোংরা ছিল টয়লেট থেকে শুরু করে অন্যান্য মালামাল। স্কুলে সরকারী নিয়োগকৃত দপ্তরী থাকার পরও স্কুলের পরিবেশ নোংরা থাকায় এলাকাবাসী বিক্ষোভও করেছিল। বিগত ১বছর আগে স্থানীয় চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিমসহ স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ স্কুল পরিদর্শন কালে টয়লেটসহ অন্যান্য জিনিস নোংরা অবস্থায় পাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছিল। সেই সময় স্থানীয় অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের অভিযোগ ছিল দপ্তরী নিজ এলাকার হওয়ায় প্রভাব দেখিয়ে কাজে অবহেলা করেন।

মঙ্গলবার (৭আগষ্ট) সকালে চলমান বিষয় নিয়ে শিক্ষক আর শিক্ষার্থীদের সাথে মতবিনিময় করতে যান চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিম। এক পর্যায়ে স্কুলের বিভিন্ন কক্ষ পরিদর্শনকালে টয়লেটের অবস্থান দেখে হতবাক হয়ে পড়েন। শিক্ষক আর শিক্ষার্থীরা তাদের প্রয়োজনীয় কাজ শেষ করছেন অত্যান্ত নোংরা পরিবেশে। এটি দেখে তিনি বসে থাকতে পারেননি। সাথে সাথে টয়লেট পরিস্কার করার হারপিক আর ব্রাশ হাতে নিয়ে একাই টয়লেট পরিস্কার শুরু করেন। একে একে সবকটি টয়লেট তিনি পরিস্কার করেন। ওই সময় শিক্ষক, শিক্ষার্থী আর অভিভাবকসহ স্থানীয় এলাকাবাসী চেয়ারম্যানের মহৎকাজে সাধুবাদ আর স্কুল কমিটি আর দপ্তরীর প্রতি ধিক্কার জানান। এ ঘটনা সকলের জন্য একটি শিক্ষা বলে অভিমত প্রকাশ করেন আগত লোকজন।

মো: হারুণ নামের এক ফেসবুক ইউজার তার মতামতে উল্লেখ করেন, মগনামাবাসী ধন্য এমন একজন প্রতিনিধি পেয়ে। শুভ কামনা ও ভালবাসা সবসময়। কামাল বাহাদুর নামের একজন উল্লেখ করেন, সবার উচিত এ শিক্ষাটা গ্রহণ করা। ইমরান খান উল্লেখ করেন, মনবতার এক অন্যান্য দৃষ্টান্ত। আশাদুল হক আসাদ উল্লেখ করেন, অনুকরনীয় দৃষ্টান্ত। সবার জন্য উদাহরণসহ এভাবে অনেকেই অনেক মতামত প্রকাশ করেছেন।

এ বিষয়ে চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মগনামা উচ্চ বিদ্যালয় মগনামাসহ আশেপাশের এলাকাবাসীর একমাত্র স্কুল। এ স্কুলে লেখাপড়া করে অনেক শিক্ষার্থী সরকারী বিভিন্ন দপ্তরে কর্মরত রয়েছেন। স্কুলের শিক্ষার পরিবেশ বজায় রাখার জন্য আমি সবসময় ওয়াকিবহাল। তবে টয়লেট পরিস্কার করাটা আমার নিয়মিত কাজের অংশ। মগনামা এবং মগনামার জনগণকে ভালবাসি। প্রচার পাওয়ার জন্য নয় নিজ দায়িত্ববোধ থেকে মগনামাকে সাঁজাতে চাই। ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ওখানে অনেক লোক ছিল কে বা কাহারা ছবি তুলে তা ফেসবুকে দিয়েছে।


আরোও সংবাদ