পেকুয়ায় শিক্ষার্থীদের স্বেচ্ছাশ্রমে সড়কের সংষ্কার

প্রকাশ:| শুক্রবার, ২৬ সেপ্টেম্বর , ২০১৪ সময় ০৯:১৩ অপরাহ্ণ

কক্সবাজার ব্যুরো অফিস, নিউজচিটাগাং২৪.কম >>
কক্সবাজারের পেকুয়ায় রাজাখালী ইউনিয়নে শিক্ষার্থীদের স্বেচ্ছাশ্রমে চলছে সড়ক সংস্কারের কাজ। বিধবস্থ একটি জনবহুল গ্রামীন সড়ক সংস্কারের জন্য একদল ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা মিলিয়েছে হাত। তারা সামাজিক অবকাঠামোর উন্নয়নে স্বেচ্ছাশ্রম দিতে এগিয়ে এসেছেন। এমনকি বই, খাতা কলম ফেলে এখন তারা সড়ক সংস্কার করতে নেমে পড়েছেন স্বেচ্ছাশ্রমে।

ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা আগামী দিনের স্বপ্নদ্রষ্টা। ওরাইতো গড়বেন সুন্দর এ পৃথিবী। আর রাজাখালীতে ঘটেছে এর বাস্তব প্রতিফলন। উপকুলীয় ওই ইউনিয়নের দরবার সড়ক সংস্কারের জন্য গত এক সপ্তাহ ধরে স্বেচ্ছাশ্রমে নিয়োজিত রয়েছে ২০/২৫জনের শিক্ষার্থী।

জানা গেছে, দরবার সড়কটি এলজিইডি গত ১০বছর পুর্বে সবুজ বাজার থেকে বকশিয়াঘোনা পর্যান্ত প্রায় দু’কিলোমিটার ব্রিক সলিং দ্বারা সংস্কার করে। গত ৩/৪বছর ধরে এ সড়কের অনেক অংশে খানা খন্দক তৈরী হয়েছে। এ সড়কের দু’পাশের স্লোবের মাটি সরে গিয়ে বহু স্থানে ছোট বড় গর্ত হওয়ায় বর্তমান বর্ষা মৌসুমে চলাচল অনেকটা থেমে যায়। অবহেলিত ওই সড়কটিতে যান চলাচলসহ উপযোগি করতে শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ে এলাকাবাসিরা সংস্কার কাজে অংশ নিয়েছে।

গতকাল শুক্রবার সকালে সরেজমিন সড়ক পরিদর্শনে দেখা যায় ওই সড়কে পশ্চিম অংশে ছনুয়া খালের মাথা থেকে বকশিয়াঘোনা মসজিদ পর্যান্ত পুনঃসংস্কার কাজ এগিয়ে চলছে। কাজে অংশ নিয়েছে ওই এলাকার বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী। এরা কোমর বেঁধে কোদাল হাতে নিয়ে মাটি কাটছে।

এদের মধ্যে চট্টগ্রাম ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ম বর্ষের শিক্ষার্থী মোঃ দেলোয়ার হোসাইন, পেকুয়া জিয়াউর রহমান উপকুলীয় কলেজের ছাত্র কাইসার হামিদ, হামিদুর রহমান, পটিয়া সরকারী কলেজের ছাত্র আনোয়ার, এয়ার আলী খান উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীর ছাত্র শামসুদ্দিন, আতিকুর রহমান, তৌহিদুর রহমান, ৭ম শ্রেনীর ছাত্র আনছার উল্যাহ।

এছাড়া স্থানীয় মনছুর আলম ও সাবেক ইউপি সদস্য মসলেম উদ্দিন ওই কাজের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। এদেরকে সার্বিক সহযোগিতা করছেন ওই এলাকার ব্যবসায়ীসহ সর্বস্তরের মানুষ। তারা শিক্ষার্থীদের এ কাজকে অনুকরনীয় দৃষ্টান্ত বলে স্বীকৃতি দিচ্ছেন।

শিক্ষার্থীদের ওই স্বেচ্ছাশ্রমে আবিভুত হয়ে বকশিয়াঘোনা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আলী আহমদ ওই শিক্ষার্থীদের একবেলা ভোজনের আয়োজন করেন। এ সড়কের প্রায় এক কিলোমিটার পুনঃসংস্কার কাজ প্রায় সমাপ্ত হয়েছে শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে।