পেকুয়ায় পানি চলাচলের সুইচ গেইট দখল

প্রকাশ:| শনিবার, ২৫ জুলাই , ২০১৫ সময় ০৯:১০ অপরাহ্ণ

পেকুয়া প্রতিনিধি
অবিরাম বৃষ্টিতে বন্যা পরিস্থিতি অবনতি হয়েছে পেকুয়ায়। মানুষ বিগত দিনের মত ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশংকায় প্রয়োজনীয় আসবাপপত্র ও গৃহপালিত পশু অন্যত্র সরিয়ে নিচ্ছে। চারপার্শ্বে দেখা দিয়েছে আতংক। এরই মাঝে এক শ্রেনীর অসাধু ব্যক্তিরা পানি চলাচলের কালভার্ট গুলোতে মাছ ধরার জাল বসিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে। যার কারণে স্বাভাবিক ভাবে পানি প্রবাহিত হতে না পারায় ব্যাপক জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে।

বিগত বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ বেড়িবাঁধগুলো পানির শ্র“তে আরো মারাত্মক আকার ধারণ করছে। বিশেষ করে বাঘগুজরা পয়েন্টে পানি প্রবাহিত হচ্ছে সবচেয়ে বেশি। যার কারণে ওই এলাকা দিয়ে পানি ঢুকে বাঘগুজরার সাকোর পাড়, সিরাদিয়া, জালিয়াখালী, পূর্বমেহেরনামা, বিলহাচুড়া, সৈকতপাড়া, উত্তরমেহেরনামা, ছৈরভাঙ্গা, বাজারপাড়া, বলীর পাড়া, মোরারপাড়া, নন্দীর পাড়া, হরিণা পাড়ি, বাইম্যাখালীসহ আশেপাশের এলাকার বসতঘর পানির নিচে। ওই এলাকার জনগন আগে থেকেই এ বিষয়ে সর্তক থাকায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি থেকে রক্ষা পায়।

অন্যদিকে শিলখালী ইউনিয়নের দোকানপাড়া, পেঠানমাতবরপাড়া, আলীচানমাতবরপাড়া, হাজিরঘোনা, সবুজপাড়া, হেদায়াতাবাদ সহ আরো কয়েকটি গ্রাম ইতিমধ্যে পানির নিচে। আজ (২৫ জুলাই) রাতে যদি প্রচুর বৃষ্টি হয় বাকী গ্রামের মানুষজনও পানির নিচে তলিয়ে যাবে।
এদিকে সরোজমিন পেকুয়া উপজেলার বিভিন্ন পয়েন্টে বন্যা পরিস্থিতির চিত্র ধারণ করৃতে গিয়ে দেখা গেছে, বন্যার পানি সবচেয়ে বেশি প্রবাহিত ৩৬ নং সুইচ গেইটে ওই এলাকার বিএনপি নেতা মৃত আবদু রশিদের পুত্র পটু, নন্দীর পাড়ার কালভার্টে সাবেক এমইউপি ফিরোজ এর পুত্র মো: আতিক, হরিনাপাড়ির নুইন্যামুইন্যা সুইচ গেইটে আকবর আহমদের পুত্র মো: আমিন, পেকুয়া বাজারের পশ্চিম পার্শ্বে মামা ভাগিনার দোকানের সামনের সুইচ গেইটে নেচার, গোয়াখালী এলাকায় বেড়িবাঁধ কেটে দিয়ে আওয়ামীলীগ নেতা মোস্তাক ও যুবদল নেতা