পেকুয়ায় ঝুঁকিপূর্ণ বিদ্যুতের খুটি, দূর্ঘটনার আশংকা

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ৩ অক্টোবর , ২০১৭ সময় ০৭:০৬ অপরাহ্ণ

পেকুয়া প্রতিনিধি
পেকুয়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের পশ্চিম চৌমহুনীস্থ পল্লী বিদ্যুতের জোনাল অফিস সংলগ্ন ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় একটি খুটি মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। খুটিটি থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে কয়েকবার দূর্ঘটনা ও বর্তমানেও মারাত্মক দূর্ঘটনার আংশকা থাকলেও পেকুয়া জোনাল অফিস কর্মকর্তার খবর নেই। ভুক্তভোগি এর আগে লিখিত অভিযোগ ও বর্তমানে মৌখিকভাবে অভিযোগ করলেও কর্ণপাত করছেনা বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, পেকুয়া জোনাল অফিসের সামনে একটি খুটি দালানের ভিতর দিয়ে সংযোগ স্থাপন করা হয়েছে। তা ২০১০ সালে দালানের মালিক হাজ্বি মাওলানা আবদুল জলিল কাশেমী বাদি হয়ে ওই খুটি সরানোর জন্য আবেদন করেন। কর্তৃপক্ষ সরেজমিন তদন্ত পূর্বক তিনটি খুটি সারানোর জন্য বলেন। সেই বলা অদ্যবধি ওভাবেই রয়েছে খুটিটি। বর্তমানে ওই দালানের মালিক দালান সংস্কার করতে গেলে আবারো পেকুয়া জোনাল অফিস কর্মকর্তা খোরশেদ আলমকে বলেন। তিনি কোন ধরণের কর্ণপাত করছেনা। যার কারণে বড় ধরণের দূর্ঘটনার আশংকা করছে স্থানীয় আশে পাশের দোকান ব্যবসায়ীরা।

স্থানীয় ব্যবসায়ী মহিউদ্দিন, নেজাম উদ্দিনসহ অনেক ব্যবসায়ী বলেন, দালানের ভিতর দিয়ে নিয়ে যাওয়া খুটিটি অতিসত্ত্বর সরানোর প্রয়োজন। একদিকে দালান সংস্কার করতে অসুবিধা অন্যদিকে দালানের উপরে চলাচলকারী লোকজন বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে ভয়াবহ মৃত্যু হওয়ার আশংকা করছি। এছাড়াও আমরা যারা ব্যবসা করছি তারা চরম আতংকে দিনাপাত করছি। আগের একটি দূর্ঘটনায় খুটিটি অনেকাংশে পুড়ে যাওয়ায় যেকোন মূহর্তে ভেঙ্গে গিয়ে বড় ধরণের দূর্ঘটনার আশংকা রয়েছে। শেষ সম্বল পুঁজি নিয়ে ব্যবসা করছি দূর্ঘটনা হলে আমরাও ক্ষতিগ্রস্থ হব।

দালান মালিক হাজ্বি মাওলানা আবদুল জলিল কাশেমী বলেন, চৌমহুনী হয়ে লাইন সংযোগ হওয়ার সময় আমি লিখিত অভিযোগ দিয়েছিলাম। পরে তারা তিনটি খুটি সরানোর কথা বললেও আর সরাইনি। গত কয়েকদিন আগে ট্রান্সপার থেকে আগুন লেগে খুটিটি অনেকাংশে পুড়ে যায়। ভাগ্য ভাল স্থানীয়রা দ্রুত পানির ব্যবস্থা করে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। যেকোন মূহর্তে খুটিটি ভেঙ্গে গিয়ে বড় ধরণের দূর্ঘটনার আশংকা রয়েছে। বর্তমানে আমি দালান সংস্কার করতে গিয়ে ব্যাপক অসুবিধার সম্মোখিন হওয়ায় পেকুয়া জোনাল অফিসের কর্মকর্তা খোরশেদ আলমকে অবগত করি। তিনি বলেন ওভাবেই করে পেলেন। আমি নিরুপায় হয়ে সংবাদকর্মী ভাইদের মাধ্যমে ঝুঁকিপূর্ন খুটিটি সরানোর জন্য পল্লী বিদ্যুতের উর্ধ্বতম কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করছি।
এ বিষয়ে জানার জন্য পেকুয়া জোনাল অফিসের কর্মকর্তা খোরশেদ আলমের ব্যক্তিগত ও অফিসের মোঠোফোন যোগাযোগ করলে বন্ধ পাওয়ায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।


আরোও সংবাদ