পূর্ণবাসন ছাড়া উচ্ছেদ মানবে না দঃ হালিশহরবাসী !

প্রকাশ:| বুধবার, ২৩ ডিসেম্বর , ২০১৫ সময় ০৯:১৮ অপরাহ্ণ

রিং রোড ২

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক চিটাগাং সিটি আউটার রিং রোড(ফিডার রোড নং-১) প্রকল্পের জন্য ১৯৮২সনের অধ্যাদেশ এর ’ধারার বিধান মোতাবেক তপশীল বর্ণিত মৌজা-দঃ হালিশহর জে.এল নং-২৩,সাবেক থানা-বন্দর/বর্তমানে-ইপিজেড,চট্রগ্রাম-বি,এস খতিয়ান নং-৬৫৬,৬৫৬/২,৬৫৬/৪,২৬৮৬,২৬৮৭,৮৩৬৯,দাগ (পূর্ণ)৪৭০৬=০.০২৭০একর,৪৭০৮=১০৬০একর অধিকরণ কৃত ভুমির পরিমাণ=০১.৩৩০একর।

উল্লেখিত ভুমি গুলো জাইকার অর্থায়নে আউটার রিং রোড প্রকল্পের আওতায় উন্নয়ন করার জন্য গত ০৮ডিসেম্বর বিকেলে -দঃ হালিশহর (নতুন সাইটপাড়া)এলাকার এস আলম /বি.আলম রোড তৎ-সংলগ্ন বাসীন্দাদের ভ’মি হুকুম দখল কর্মকর্তা মোঃ মামুনুর রশিদ স্বাক্ষরিত চুড়ান্ত উচ্ছেদ নোর্টিশ প্রদান করেন । নোর্টিশ প্রাপ্ত হয়ে ভুক্তভোগী বাসীন্দরা ১৫ ডিসেম্বর ভ’মি হুকুম দখল কর্মকর্তা ( চট্রগ্রাম -জেলা প্রশাসক কার্যলয়) বরাবরে অধিগ্রহণ সম্পত্তির বিষয়ে আপত্তি দাখিলকরণ এল.এ মামলানং-০৯/২০১৫-১৬ইং মূলে ভ’মি অধিগ্রহণের প্রস্তাব পেশ করে প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট মহলে স্মারক লিপি,গণ সাক্ষরযুক্ত নারাজি পত্র সহ যথাযত ক্ষতিপূরণ এবং ভুক্তভোগী বাসীন্দাদের পূর্ণবাসন করার দাবি জানিয়ে প্রধান মন্ত্রী,ভুমি মন্ত্রী ও সিডিএ চেয়ারম্যান কে আবেদন পত্র দিয়েছেন ।

ভুক্তভোগীদের একজন আলী মিয়া ও মোঃ জাহাঙ্গীর জানান,১৯৬১/৬২সনে তৎকালীন প্রাদশিক সরকার আমাদের পূব-পুরুষের বসত ভিটে,ভ’-সম্পত্তি অধিগ্রহণ করে সে সময়ে নিস্পতী এল,এ মামলা নং-১০৫/৬১-৬২সন সাইট পাড়াস্থ নারিকেল তলা এলাকায় পূর্নবাসিত করে । সেথেকে এই মৌর্শি সম্পত্তিতে দালান,কোঠা,বসত-বাড়ী-ঘর,গৃহস্থলী ,গাছপালা,পুকুর-ডোবা,নালা-ড্রেন ,নর্দমা,খাল-বিল সহ অসংখ্য স্থাপনানির্মাণ করে আমরা মিলেমিশে বসবাস করে আসছি ।

এলাকার প্রবীণ ও অভিজ্ঞ হাজী ওবায়দুল হক ,দৌলত মিয়া ও আনোয়ারা বেগম বলেন,ইতিপূর্বেও নৌ-বাহিনী,পতেঙ্গা শিল্প জোন,বন্দর কর্তৃপক্ষ,পাওয়ার বোর্ড,পিডিবি,সিডিএ,টিসিবি,যৌথ আবাসিক কলোনী এবং স্টীল মিল (ইস্পাত কারখানা) করে আমাদের পূর্ব পুরুষের ভ’-স¤পত্তিÍ ও অধিগ্রহন করে বারবার উচ্ছেদ হয়ে দিশা হারা হয়েছেন । আর এবারো যদি পূর্ণবাসন ছাড়া উচ্ছেদ করা হয় তাহলে পরিবার –পরিজন নিয়ে পথে বসা ছাড়া গতি থাকবে না বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন ।

ভুমি উচ্ছেদ নোর্টিম প্রসঙ্গে ভ’মি হুকুম দখল কর্মকর্তা মামুনুর রশিদ ও -জেলা প্রশাসক কার্যলয় সূত্র জানান যে, সরকার কর্তৃক চিটাগাং সিটি আউটার রিং রোড প্রকল্প আওতায় দঃ হালিশহর মৌজার সাইট পাড়াস্থ নারিকেল তলা এলাকার যৌথ আবাসিক কলোনী রোডের চওড়া ১২০ফিট থেকে লম্বা হয়ে পশ্চিমে বেড়ী-বাধঁ গিয়ে আউটার রিং সংযোগ হবে বলে জানান।সিডিএ ও খুব শীঘ্রই এ উচ্ছেদ বাস্তবায়ন করবে বলে সূত্র জনায় ।
উচ্ছেদ প্রসঙ্গে-৩৮,৩৯,৪০,৪১নং কাউন্সিলর গণ স্ব-স্ব মতামতে জানান যে, রিং রোড প্রকল্প আওতায় এলাকার উন্নয়ন হোক সেটা সবার কাম্য, কিন্তু পূর্ণবাসন ছাড়া উচ্ছেদ করা হলে ক্ষতিগ্রস্থ দের সাথে নিয়ে দাবি আদায়ের জন্য চেষ্টা অব্যাহেত থাকব ।দীর্ঘ বৎসর এ অচ্ঞলের মানুষ ত্যাগের মধ্যে সরকার কে উন্নতি দিয়েছে । আর পতেঙ্গা-হালিশহর এলাকার বাসিন্দাদের জোর পূর্বক উচ্ছেদ করে উন্নয়ন জনগণ মেনে নিবে না ।এছাড়া এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সার্বিক মতবিনিময় করার জন্য একটি পূর্ণবাসন ও ক্ষতিগ্রস্থ নাগরিক কল্যাণ কমিটি গঠন করা হবে বলেও ভুক্তভোগী বাসীন্দা এমদাদ জানান ।

এদিকে জাইকার একটি বিশ্বস্ব সূƒত্রে জানা গেছে যে, সিটি আউটার রিং রোড(ফিডার রোড নং-১) প্রকল্পের এলাকার উন্নয়নে ক্ষতিগ্রস্থদের পূর্নবাসনসহ যথাযথ ক্ষতিপূরণের জন্য সরকার কে স্থান দেখা ও এলেটম্যান এরিয়া নির্ধারন এবং প্রকল্প বাস্তবায়নে সকলের অংশগ্রহন নিশ্চিত করণে জনমত যাছাইয়ের পরামর্শ দেন । যা সিডিএ ও ভ’মি হুকুম দখল কর্মকর্তা জেলা প্রশাসক এবং ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান মানে নি বলে ভুক্তভোগীদের একাধিক লোক অভিযোগ করে বলেন ।

এলাকাবাসী এই অধিগ্রহণে ক্ষতিগ্রস্থদের পূর্নবাসনসহ যথাযথ ক্ষতিপূরণের জন্য মাননীয় প্রধান মন্ত্রী,সড়ক-সেতু মন্ত্রী,ভুমি-মন্ত্রী,সিডিএ চেয়ারম্যান,স্থানীয় সাংসদ,জেলা-প্রশাসক, সিটি মেয়র সহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি জোর দাবি জানান ।

সংবাদ সূত্রঃ সিডিএ, -জেলা প্রশাসক কার্যলয়, ভ’মি হুকুম দখল কর্মকর্তা,জাইকা, ভুক্তভোগ দের স্মারক লিপি নং১৫/ডিসে,এল এ নোটিশ/৮ডিসেঃ


আরোও সংবাদ