পিপলস হাসপাতালের পরিচালককে কারণ দর্শানোর নোটিশ

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| সোমবার, ২৮ মে , ২০১৮ সময় ০৯:২৬ অপরাহ্ণ

নগরের চকবাজারের বেসরকারি পিপলস হাসপাতালে জমজ নবজাতকের একটি অভিভাবকের অগোচরে ডাস্টবিনে ফেলে দেওয়ার ঘটনাকে ‘অনভিজ্ঞ ও দায়িত্বজ্ঞানহীন’ বলে উল্লেখ করে ওই হাসপাতালের পরিচালককে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগের গঠিত তদন্ত কমিটি।

সোমবার(২৮ মে) দুপুরে বিষয়টি বাংলানিউজকে নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. এ এম মুজিবুল হক।

তিনি বলেন, ‘পিপলস হাসপাতালে জমজ নবজাতকের একটি ডাস্টবিনে ফেলে দেওয়ার ঘটনায় গঠিত দুই সদস্যের তদন্ত কমিটি প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, ওই হাসপাতালের আয়া মৃত শিশুটিকে সিটি করপোরেশনের ডাস্টবিনে ফেলে দেয়। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে ওই সিটি করপোরেশন গাড়ি থেকে মৃত শিশুটিকে এনে অভিভাবককে দেখান।

এ ঘটনাটিকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের ‘অনভিজ্ঞ ও দায়িত্বজ্ঞানহীনের’ বহির্প্রকাশ বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক আরও বলেন, এ ঘটনায় পিপলস হাসপাতালের পরিচালক (প্রশাসন) ডা. আহাদকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

এর আগে ২২ মে ভোরে নগরের পুরাতন চান্দগাঁও থানা এলাকার মধ্যপ্রাচ্য প্রবাসীর স্ত্রী আমেনার (২৬) প্রসব বেদনা শুরু হলে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের পূর্ব পাশে বেসরকারি পিপলস হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

পরে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে সিজিরিয়ানের মাধ্যমে দু‘টি জমজ নবজাতক জন্মগ্রহণ করে। এরমধ্যে একটি ছেলে, আরেকটি মেয়ে। কিন্তু জন্মের পর হাসপাতাল থেকে জানানো হলো মেয়ে শিশুটি জীবিত হলেও ছেলে সন্তানটি মৃত। জীবিত অবস্থায় মেয়ে শিশুটিকে দেওয়া হলেও মৃত ছেলে শিশুটির মুখ মা’কে না দেখিয়ে হাসপাতালের আয়া ডাস্টবিনে ফেলে দিয়েছিলো।

পরে জন্মদাত্রী মা যখন মৃত ছেলে সন্তানটির মুখ দেখতে চান, তখন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ গড়িমসি করেন। পরবর্তী ভূক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা পাঁচলাইশ থানায় গিয়ে অভিযোগ করেন।

পরে একই দিন বিকেলের দিকে পুলিশি হস্তক্ষেপে সিটি করপোরেশনের বর্জ্যবাহী ট্রাক থেকে নিখোঁজ সেই জমজ নবজাতকের মধ্যে মৃত ছেলে সন্তানকে উদ্ধার করা হয়।


আরোও সংবাদ