পিডিবির ভ্রাম্যমাণ আদালতের জেল-জরিমানা

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১৩ মার্চ , ২০১৪ সময় ১১:০৪ অপরাহ্ণ

বকেয়া বিল ও অবৈধ সংযোগের মাধ্যমে বিদ্যুৎ ব্যবহারের অভিযোগে পটিয়ায় পাঁচজনকে জেল হাজতে পাঠিয়েছেন বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) ভ্রাম্যমাণ আদালত। একই সঙ্গে ১৪ জনকে প্রায় পৌনে ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার ও বুধবার বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (বিউবো), চট্টগ্রামের বিদ্যুৎ আদালতের (উত্তর) সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ হাসানের নেতৃত্বে পটিয়ার আওতাধীন বিভিন্ন এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকালে এসব আদেশ দেন।

পিডিবি চট্টগ্রাম দক্ষিণাঞ্চলের জ্যেষ্ঠ সহকারী পরিচালক (জনসংযোগ) মনিরুজ্জামান জানান, অবৈধভাবে বিদ্যুৎ ব্যবহার এবং বিদ্যুৎ বিল বকেয়া রাখার দায়ে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে সমন জারি করা হলে তারা গত ১২ মার্চ বিউবো আদালতে হাজির হয়ে উকিলের মাধ্যমে কিস্তি ও জামিনের আবেদন করেন। আদালত এ সময় ৫ জনকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন ও বাকি ৯ জনকেসহ মোট ১ লক্ষ ৭৩ হাজার ৯৩২ টাকা জরিমানা করেন।

জেল হাজতে পাঠানো পাঁচজনের মধ্যে চারজনের বিদ্যুৎ বিল বকেয়া আছে ৩ লাখ ১১ হাজার ৬৫৪ টাকা। বাকি একজন মিটার বাইপাস করে বিদ্যুৎ ব্যবহার করছিলেন। এরা হলেন, মহিন সিকদারের বাড়ী এলাকার আমিন, বাবা মৃত সালেহ আহমেদ (বকেয়ার পরিমাণ ১,১৬,৮৩৯/- টাকা), আলী হোসেন চেয়ারম্যান বাড়ী এলাকার ইউনুছ, বাবা মৃত সালেহ আহম্মদ (বকেয়ার পরিমাণ ৩১,০৩৯/- টাকা), ইয়াছিন চেয়ারম্যান বাড়ী এলাকার শামছুল আলম প্রকাশ ভোলা মিয়া, বাবা মৃত কবল খায়ের (বকেয়ার পরিমাণ ৩৯,৭৭৬/- টাকা) ও আলী হোসেন চেয়ারম্যান বাড়ী এলাকার ফরিদুল আলম, বাবা মৃত আহম্মদ নবী (বকেয়ার পরিমাণ ১,২৪,০০০/- টাকা) এবং আলী হোসেন মার্কেট এলাকার মো. লোকমান, বাবা মৃত আব্দুল হাকিম (অবৈধভাবে মিটার বাইপাস করে বিদ্যুৎ ব্যবহারকারী)।

এদের মধ্যে প্রথম তিনজনের বিরুদ্ধে বিদ্যুৎ বিল বকেয়া রাখার পাশাপাশি অবৈধভাবে বিদ্যুৎ ব্যবহারেরও অভিযোগ আছে। এর আগে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ হাসান গত ২০ ফেব্রুয়ারি অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন এবং খেলাপি বিদ্যুৎ গ্রাহকের বকেয়া আদায়ের জন্য বিতরণ বিভাগ-পটিয়ার আওতাধীন মইজ্যারটেক, চরলক্ষ্যা, আলী হোসেন মার্কেট এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকালে বিতরণ বিভাগ-পটিয়ার নির্বাহী প্রকৌশলী আলতাফ হোসেন, সহকারী প্রকেশৈলী ইকবাল হোসেন, খোরশেদ আলম সরকার, উপসহকারী প্রকৌশলী মইনউদ্দিন আহমদ, আব্দুস সামাদ ভূঁইয়া ও কারিগরী কর্মচারীসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। পুলিশ সদস্যরাও অভিযানে অংশ নেন।