পিএসসি দাবি মেনে নেয়ার পরও আন্দোলনকারীরা সরে আসেনি-ছাত্রলীগ

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই , ২০১৩ সময় ০৪:৫৬ অপরাহ্ণ

‘বিসিএস-বঞ্চিতদের’ আন্দোলন নিয়ে আনুষ্ঠানিক বক্তব্য দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন বাংলাদেশ bcs-chatra league 1_6770_0ছাত্রলীগ।’বঞ্চিতদের’ আন্দোলন নিয়ে বক্তব্য দিল ছাত্রলীগ

সংগঠনটির সভাপতি বদিউজ্জামান সোহাগ বলেছেন, “তাদের [বিসিএস-বঞ্চিতদের] বুধবারে আন্দোলনে [ছাত্রলীগের] সমর্থন ছিল। তবে পিএসসি দাবি মেনে নেয়ার পরও তারা আন্দোলন থেকে সরে আসেনি।”

বৃহস্পতিবার বিকেলে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন তিনি।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত শাহবাগ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় ‘বিসিএস-বঞ্চিতদের’ সঙ্গে পুলিশ ও ছাত্রলীগের ধাওয়াধাওয়ি ও মারধরের পর বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে ছাত্রলীগ।

সরকারি চাকরিতে কোটা ও ৩৪তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ফল বাতিলের দাবিতে বুধবার দিনভর শাহবাগ মোড় অবরোধ করে ‘বিসিএস-বঞ্চিতরা’। এ প্রেক্ষিতে অবরোধের সাড়ে ৭ ঘণ্টার মাথায় প্রিলিমিনারির ফল পুনর্মূল্যায়নের সিদ্ধান্ত দেয় বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশন (বিপিএসসি)। তা সত্ত্বেও আন্দোলনকারীরা বৃহস্পতিবার সকালেও ওই মোড় অবরোধ করতে গেলে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ব্যবহার করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

এরপর পিছু হটা আন্দোলনকারীরা আবার শাহবাগ অবরোধ করতে চাইলে বাধা দেয় ছাত্রলীগ। এসময় তারা কয়েকজন আন্দোলনকারীকে মারধরও করে।

অবশ্য মারধরের বিষয়টি সংবাদ সম্মেলনে অস্বীকার করেন ছাত্রলীগ সভাপতি সোহাগ। এসময় বৃহস্পতিবার আন্দোলনের ‘বিপক্ষে’ অবস্থান নেয়ার কারণও ব্যাখ্যা করেন তিনি।

সোহাগ বলেন, “কিছু শিবিরকর্মী সাধারণ শিক্ষার্থীদের বিভ্রান্ত করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী কথা বলে। তারা মুক্তিযোদ্ধাদের কটূক্তি করে।”

‘মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানরা’ এ বিষয়ে তাদের কাছে জানতে চায় উল্লেখ করে তিনি বলেন, তারা উত্তর দিতে পারেনি।

কোটা বাতিলের আন্দোলন তারা সমর্থন করেন কি না- সমকালের এমন প্রশ্নের জবাবে সোহাগ বলেন, “প্রয়োজন হলে কোটা সংকোচন হতে পারে।”

চলমান বিক্ষুব্ধ পরিস্থিতিতে কোটা বাতিল নিয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলেই বৈঠক করেছে পিএসসি। তবে বৈঠকের কোনো সিদ্ধান্ত গণমাধ্যমকে জানাতে পারেননি সরকারি প্রতিষ্ঠানটির গণসংযোগ কর্মকর্তা মীর মোশাররফ হোসেন।


আরোও সংবাদ