পাসপোর্টের মেয়াদ ১০ বছরের চিন্তা, বাদ যাবে সত্যায়ন

প্রকাশ:| শনিবার, ১৫ অক্টোবর , ২০১৬ সময় ০৯:২৩ অপরাহ্ণ

%e0%a6%aa%e0%a6%be%e0%a6%b8%e0%a6%aa%e0%a7%8b%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%9f%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%ae%e0%a7%87%e0%a7%9f%e0%a6%be%e0%a6%a6-%e0%a7%a7%e0%a7%a6-%e0%a6%ac%e0%a6%9b%e0%a6%b0%e0%a7%87ভোগান্তি কমাতে সত্যায়ন ছাড়াই পাসপোর্ট দেওয়ার চেষ্টা চলছে জানিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মো.মোজাম্মেল হক খান বলেছেন, পাসপোর্টের মেয়াদ ১০ বছর করার বিষয়েও চিন্তা-ভাবনা চলছে।

শনিবার সকালে নগরীর পাঁচলাইশে আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের নতুন ভবন উদ্বোধন উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা জানান

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব বলেন, এখন জাতীয় পরিচয়পত্র বা জন্মসনদ দিয়ে নিজে উপস্থিত হয়ে ছবি তুলতে হচ্ছে। আবার পাসপোর্ট নেওয়ার সময়ও নিজেকে আসতে হচ্ছে। ফলে সত্যায়িত না করলেও এখন আর কোন সমস্যা হবে না। ফরম সত্যায়নের বিষয়টি বাদ দেওয়ার জন্য আইন মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠিয়েছি। মন্ত্রণালয়ের অনুমতি পাওয়া গেলে পাসপোর্ট দেওয়ার নতুন নীতিমালা জারি করবো। এতে আমাদের কার্যক্রম বেগবান হবে এবং সেবার মান আরও উন্নত হবে।

‘পাসপোর্ট ফরম সত্যায়িত করতে বিভিন্ন জায়গায় ধর্না দিতে হয়। অনেক সময় সত্যায়নের জন্য অফিসার পাওয়া গেলেও সিল পাওয়া যায় না। সিল পাওয়ার জন্য পিয়নের পেছনে দৌঁড়াতে হয়। পিয়নকে আবার একটু খাতির-টাতির করলে সিল বের হয়। এই যে যন্ত্রণা, এটাও আমরা মাথায় রাখি। মানুষের ছোট ছোট কষ্টগুলো, সমস্যাগুলো বুঝার চেষ্টা করি। তাই আমরা চাই সত্যায়ন ছাড়াই পাসপোর্ট দিতে। কারণ এখণ তথ্য গোপন বা আরেকজনের পাসপোর্ট করার সুযোগ নেই।’

পাসপোর্ট নিয়ে অনেক সমস্যা ছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের অনেক কাজ করতে হয়েছে। পাসপোর্টের কারণে আমাকে বহুবার বিদেশ যেতে হয়েছে। সেখানে প্রবাসী বাংলাদেশিদের সাথে মতবিনিময় করেছি। সব জায়গায় আমি শুনেছি কিছু কিছু পাসপোর্ট বেহাত হয়েছে। এটা অনেকটা নিয়মে পরিণত হয়েছিল। রোহিঙ্গা সমস্যা এরমধ্যে অন্যতম।

সৌদি আরবে এমন কিছু লোক পেয়েছি তারা ঠিক মতো বাংলা বলতে পারে না। অর্থাৎ কিছুক্ষণ কথা বললেই তাদের ভাষার গড়মিল ধরা পড়ে। এই সমস্যা আমরা মুছে ফেলার চেষ্টা করছি। এই দুর্নাম কাটিয়ে সঠিক মানুষের কাছে ডকুমেন্ট দিতে আমরা অঙ্গিকারবদ্ধ। তখন আমরা গর্ভবোধ করতে পারবো যে এটা ভুয়া নয় শতভাগ সঠিক।

তবে আমরা এখনো আমরা বলতে পারি না শতভাগ শুদ্ধ হতে পেরেছি। কিছু কিছু অফিসে এখনো স্বচ্চতার অভার রয়েছে। তবে এজন্য সবাইকে সচেতন হতে হবে। আমাদের অঙ্গিকারবদ্ধ হতে হবে আর্থিক বিনিময়ে সেবা নেব না এবং দেব না। এসময় তিনি সিটিজেন চার্টার অনুযায়ী কাজ করতে কর্মকর্তাদের  প্রতি আহ্বান জানান। ১৫টি দেশে দূতাবাসের সঙ্গে পাসপোর্ট অফিসের উইং খোলা হয়েছে এবং লোজবলও নিয়োগ দেওয়া হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, আরও দুটি দেশে খোলার জন্য অনুমোদনের কাজ চলছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোস্তফা কামাল বলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ১০টি অধিদফতরের মধ্যে পাসপোর্ট অধিদফতর একটি। এখান থেকেই একজন নাগরিকের আন্তর্জাতিক পরিচয়পত্র দেওয়া হয়। ফলে এর গুরুত্ব ও সম্মান অনেক বেশি। কম সময়ের মধ্যে বিদেশে এক কোটি ও দেশের ১ কোটি ৫২ লাখ পাসপোর্ট পৌঁছে দিতে সক্ষম হয়েছে। এছাড়া প্রায় ৪ লাখ এমআরভি  মেশিন রিডেবল ভিসা) দেওয়া হয়েছে।

পাসপোর্ট অফিসে বিভিন্ন ভোগান্তির কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, দালালি কিভাবে হয় তা আমরা খতিয়ে দেখছি। এতে পাসপোর্ট অফিসের কেউ জড়িত থাকলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বছরে ৩০ থেকে ৪০ লাখ মানুষ বিভিন্ন দেশ ভ্রমণ করে জানিয়ে তিনি বলেন, তাই পাসপোর্টের গুরুত্ব অনেক বেশি। এটা আমাদের ধরে রাখতে হবে।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক শামসুল আরেফিন বলেন, নাগরিকদের মধ্যে পাসপোর্টের চাহিদা বেড়েছে। বিভিন্ন কারণে বিদেশ ভ্রমণ করছে। ডিজিটাল পাসপোর্ট পেতে মানুষ আর হয়রানির শিকার হবে না।

পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা কেবল ৫ শতাংশ মানুষ দালালের মাধ্যমে পাসপোর্ট করে দাবি করে বলেন, মায়ানমারের নাগরিক রোহিঙ্গারা বাংলাদেশি পাসপোর্ট নিয়ে বাঙালি পরিচয় দিয়ে বিদেশে বাংলাদেশের সুনাম ক্ষুণ্ন করেছে।

এর আগে নগরীর পাঁচলাইশে আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের নতুন ভবনের উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড.মো.মোজাম্মেল হক খান। এটি বিহরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদফতরের আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস নির্মাণ প্রকল্পের ৩৩ তম ভবন।

এই অফিস থেকে নগরীর চান্দগাঁও, কর্ণফুলী, কোতোয়ালী, চকবাজার, পাঁচলাইশ, বাকলিয়া থানা এবং দক্ষিণ চট্টগ্রামের পটিয়া, বোয়ালখালী, সাতকানিয়া, লোহাগাড়া, আনোয়ারা, বাঁশখালী ও চন্দনাইশ উপজেলার বাসিন্দারা সেবা নিতে পারবেন।