“পার্বত্য চট্টগ্রামে নারী কার্বারী”

প্রকাশ:| রবিবার, ১৮ অক্টোবর , ২০১৫ সময় ০৯:১৯ অপরাহ্ণ

কার্বারি নিয়োগপার্বত্য চট্টগ্রাম আদিবাসী নারীদের ক্ষমতায়নের স্বার্থে রাঙামাটি-বান্দরবান-খাগড়াছড়ি সার্কেলে প্রতিটি মৌজায় নারী কার্বারী (গ্রাম প্রধান) নিয়োগ করা হবে। ইতিমধ্যে চাকমা সার্কেলের অধীনে ১২০ জন নারী কার্বারী নিয়োগ করা হয়েছে। বাকীগুলোতে নিয়োগের প্রক্রিয়া চলছে। এরই ধারাবাহিকতায় মং ও বোমাং সার্কেলেও নারী কার্বারী নিয়োগ করা হবে। এ কথা বলেছেন চাকমা সার্কেল চীফ ব্যারিস্টার দেবাশীষ রায়।
রোববার রাঙামাটির কল্যাণপুরে টংগ্যা সম্মেলন কক্ষে কাপেং ফাউন্ডেশনের আদিবাসী নারী ও শিশু সহিংসতার প্রতিরোধ বিষয়ক এক কর্মশালায় এই কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, নারী কার্বারীরা পার্বত্য চট্টগ্রামে আদিবাসী সমাজে ভূমি ও ভূমি ব্যবস্থাপনাসহ সমাজে বিভিন্ন বিচার কাজে সম্পৃক্ত হবে।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় ওরফে সন্তু লারমা। এসময় তিনি বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের আদিবাসীদের অধিকার আন্দোলনে বড় ভুমিকা রেখে যাচ্ছে আদিবাসী নারীরা। পার্বত্য চট্টগ্রামে দীর্ঘ ২০ বছর সশস্ত্র সংগ্রামে নারীদের ভূমিকা ছিল অপরিসীম। আন্দোলন ছাড়া অধিকার প্রতিষ্ঠা হবে না উল্লেখ করে সন্তু লারমা নারীদের এই আন্দোলন অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান।

কাপেং ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক পল্লব চাকমার সভাপতিত্বে কর্মশালায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সদস্য নিরূপা দেওয়ান, বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের সাংগঠনকি সম্পাদক শক্তিপদ ত্রিপুরা।

নিউজচিটাগাং২৪ডটকম/এসএ/এমএম


আরোও সংবাদ