পলাতক খুনি নূর চৌধুরীকে ফিরিয়ে দিতে সম্মত কানাডা

প্রকাশ:| শনিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর , ২০১৬ সময় ১০:০৭ অপরাহ্ণ

জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনি নূর চৌধুরীকে ফিরিয়ে দিতে করনীয় ঠিক করতে বাংলাদেশ ও কানাডা দু’দেশই সম্মত হয়েছে।
পলাতক খুনি নূর চৌধুরী
শুক্রবার কানাডার মন্ট্রিলে গ্লোবাল ফান্ড কনফারেন্সের উদ্বোধনীর পর, শেখ হাসিনা ও জাস্টিন ট্রুডোর এক দ্বি-পক্ষীয় বৈঠকে এই বিষয়ে আলোচনা হয়।

এর আগে, কনফারেন্সের উদ্বোধনী বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ম্যালেরিয়া, এইডস ও টিউবারকিউলোসিস প্রতিরোধে বিশ্বনেতাদের প্রতি চ্যালেঞ্জ গ্রহণের আহ্বান জানান।

কানাডার মন্ট্রিলের ডাউনটাউনে হায়াত রিজেন্সি হোটেলে শুক্রবার দুপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন হয় গ্লোবাল ফান্ড কনফারেন্সের। কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো এই কনফারেন্সের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশ্ব নেতাদের পাশাপাশি বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিশ্ব থেকে টিউবারকিউলোসিস, ম্যালেরিয়া এবং এইডস দূরীকরণে চ্যালেঞ্জ গ্রহণে বিশ্বনেত্রীবৃন্দের প্রতি আহ্বান জানান শেখ হাসিনা।

এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দ্বি-পাক্ষিক বৈঠক করেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর সঙ্গে। বৈঠকে কানাডায় পলাতক বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত কুনি নূর চৌধুরীকে ফিরিয়ে দিতে কানাডার সহযোগিতা চায় বাংলাদেশ। এসময় কানাডাও এ ব্যাপারে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রীর সফর সঙ্গীরা।

এরপর ৭১’র মহান মুক্তিযুদ্ধে তৎকালীন কানাডীয় প্রধানমন্ত্রী পিয়েরে ট্রুডোর বাংলাদেশ-বান্ধব বিশেষ ভূমিকার জন্য সম্মাননা তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সপরিবারে বঙ্গবন্ধুকে হত্যাকারীদের মধ্যে একজন নূর চৌধুরী। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত এ খুনি বর্তমান কানাডায় অবস্থান করছেন। বর্তমানে বঙ্গবন্ধুর ৬ খুনি দেশের বাইরে রয়েছেন। ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ডের পর তারা ৩ নভেম্বর থাইল্যান্ডের ব্যাংকক, পরে করাচী হয়ে লিবিয়ার ত্রিপলিতে চলে যান।

এরপর রাজনৈতিক পুনর্বাসন ও চাকরির সুবিধা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র, পাকিস্তানসহ বিভিন্ন দেশে আশ্রয় নেন। ১৯৯৭ সালের সেপ্টেম্বরে তাদের বিরুদ্ধে ইন্টারপোলের মাধ্যমে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। খুনিদের মধ্যে এস. এইচ. এম. বি নূর চৌধুরী জার্মানিতে বেশ কিছুদিন পালিয়ে থাকার পর বর্তমানে কানাডায় রয়েছেন।


আরোও সংবাদ