পর্দা উঠলো মাসব্যাপী ‘কালারস অব চিটাগাং’

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২৭ মার্চ , ২০১৮ সময় ০৯:৩৪ অপরাহ্ণ

‘ঐতিহ্যের শুরু এখানেই’ এ স্লোগানকে সামনে রেখে বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্দা উঠলো ‘কালারস অব চিটাগাং’ সিজন-২। নগরীর বাংলাদেশ মহিলা সমিতির মাঠে ফুড ফেস্টিভ্যাল আয়োজনের মধ্য দিয়ে মাসব্যাপী এই আয়োজন শুরু হয়েছে।

উদ্বোধনের আগে ‘পরিচ্ছন্ন হোক আমার শহর’ স্লোগানে একটি সাইকেল ৠালি বের করা হয়।

ফেস্টিভ্যালের উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ সালাম।

তিনি বলেন, চট্টগ্রামকে বৃহ‍ৎ পরিসরে তুলে ধরার প্রয়াসে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানটিতে বন্দর নগরীর বিভিন্ন বিষয় উঠে আসবে বলে আমি আশাবাদী। শহরের সংস্কৃতি-ঐতিহ্যের পাশাপাশি সম্ভাবনার কথাও তুলে ধরতে কালারস অব চিটাগাংয়ের মতো আরও অনুষ্ঠান আয়োজনের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে।

র‍্যাংকস এফসি প্রপার্টিজের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) তানভীর শাহরিয়ার রিমন বলেন, চট্টগ্রামকে অবহেলার আর কোন সুযোগ নেই। অর্থনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সকল ক্ষেত্রেই দুর্বার গতিতে চট্টগ্রাম এগিয়ে যাচ্ছে।

বারকোড গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মঞ্জুরুল হক বলেন, মিডিয়াগ্রাফি বরাবরই চট্টগ্রামকে নানাভাবে তুলে ধরার চেষ্টা করেছে বিশ্ববাসীর সামনে। এবারের কালারস অব চিটাগাং আয়োজনটিরও হয়নি। চট্টগ্রামকে নিয়ে এমন বড় পরিসরে চিন্তা করার জন্য আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান তিনি।

অনুষ্ঠানের আয়োজক প্রতিষ্ঠান মিডিয়াগ্রাফির প্রধান নির্বাহী মিল্টন দাশ বিজয় বলেন, ঐতিহ্য, ব্যবসা আর অদম্যশক্তিতে ঘুরে দাঁড়ানোর অসংখ্য গল্পের সমাহার চট্টগ্রাম। তার সবকিছু নিয়ে আমরা দ্বিতীয়বারের মত আয়োজন করছি মাসব্যাপী ‘কালারস অব চিটাগং-২০১৮’। এই আয়োজনের মাধ্যমে আমরা আমাদের গৌরবময় ইতিহাস, ঐতিহ্য, বৈচিত্র্যময় সংস্কৃতি ও জীবনাচরণ, ব্যবসা-বাণিজ্য এবং চট্টগ্রামের অপার সম্ভাবনার ক্ষেত্রগুলোকে বিশ্বমঞ্চে নতুন করে তুলে ধরার চেষ্টা করবো।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে চিটাগাং চেম্বার অব কর্মাসের প্রেসিডেন্ট মাহবুবুল আলম, চসিক কাউন্সিলর গিয়াস উদ্দীন, হাসান মুরাদ বিপ্লব, ফখরুল ইসলাম চৌধুরি পরাগ, রোটারিয়ান হাসনাত চৌধুরী, মিডিয়াগ্রাফির হেড অব কমিউনিকেশন এজলিন সাদাতি, ক্রিয়েটিভ ভিজুয়েল এমএম. আর সজিব, ফ্যাশন কোরিওগ্রাফার তুষার হোসেন, সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ইকবাল, নাহিদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ফুড ফেস্টিভ্যালে চট্টগ্রামের স্বনামধন্য ২০টি রেস্টুরেন্ট অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে চট্রগ্রামের বৈচিত্রের বিভিন্ন রঙ নিয়ে ‘স্বাগত হে বিশ্ববাসী’ শিরোনামে একটি প্রামান্য চিত্র তুলে ধরা হয়।