‘পরিকল্পিত নগর গড়ার লক্ষে কাজ করতে হবে

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| সোমবার, ৩০ এপ্রিল , ২০১৮ সময় ১০:৫৭ অপরাহ্ণ

নুমোদনবিহীন অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের নির্দেশনা দিয়ে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘পরিকল্পিত ও দৃষ্টিনন্দন নগর গড়ার লক্ষে সকলকে সম্বলিতভাবে কাজ করতে হবে।’

সোমবার (৩০ এপ্রিল) সকালে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ) সভাকক্ষে চেয়ারম্যান, বোর্ড সদস্য ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন তিনি।

পরে গণপূর্তমন্ত্রী সিডিএর বাস্তবায়নাধীন চাক্তাই খাল হতে কালুরঘাট পর্যন্ত সিটি আউটার রিং রোড প্রকল্প পরিদর্শন যান।

চট্টগ্রামবাসীকে একটি পরিকল্পিত, পরিচ্ছন্ন, যানজট ও জলাবদ্ধতামুক্ত সুন্দর নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে সিডিএসহ সেবা প্রদানকারী সকল সরকারি সংস্থাকে সমন্বয় করে কাজ করার পরামর্শ দিয়ে গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘চট্টগ্রামকে প্রাচ্যের রাণী ও একটি আধুনিক নগরী হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষে কালুরঘাট সেতু হতে কর্ণফুলী সেতু তীরবর্তী রিভার ভিউ প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে। পর্যটনকে গুরুত্ব দিয়ে নতুনরূপে তৈরি হচ্ছে আউটার রিং রোড। সাগরের পানি যাতে বাঁধের ওপর সরাসরি আঘাত করতে না পারে সেজন্য বেষ্টনি দেয়ালের পাশাপাশি সিমেন্টের ব্লক দেয়া হবে। এভাবে পুরো প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে চট্টগ্রাম যানজট, জলাবদ্ধতামুক্ত নগরীতে পরিণত হবে। পাশাপাশি শিল্পায়ন ও পর্যটন শিল্পের বিকাশ ঘটবে।’

তিনি আরও বলেন, চট্টগ্রামে উন্নয়নযজ্ঞ চলছে। এসব চলমান উন্নয়নকাজ শেষ হলেই চট্টগ্রাম অর্থনৈতিকভাবে গতিশীল, বিনিয়োগবান্ধব, নান্দনিক ও স্বাচ্ছন্দ্যময় বাণিজ্যিক নগরী হিসেবে গড়ে ওঠবে। চট্টগ্রামের উন্নয়নে সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালামের গৃহিত সকল প্রকল্পের প্রশংসাও করেন মন্ত্রী।

আওয়ামী লীগ ও বিএনপি সরকার আমলের উন্নয়নের চিত্র তুলনা করে দেখার জন্য জনগণের প্রতি আহবান জানিয়ে গণপূর্তমন্ত্রী বলেন, ‘উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে সরকারের ধারাবাহিকতা প্রয়োজন। কেননা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের অনেক উন্নয়ন প্রকল্প এখনো বাস্তবায়নাধীন আছে। সেহেতু এসব প্রকল্পের সুফল পেতে চাইলে আগামী নির্বাচনে অবশ্যই শেখ হাসিনাকে জয়ী করে পুনরায় প্রধানমন্ত্রী বানাতে হবে।’

এসময় সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম, সিডিএ বোর্ড সদস্য জসিম উদ্দিন শাহ, কেবিএম শাহজাহান, সিডিএ সচিব তাহেরা ফেরদৌস, চিফ ইঞ্জিনিয়ার জসিম উদ্দিন, উপ-সচিব অমল গুহ, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী হাসান বিন শামস, ঈসা আনসারী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।