পদ্মা সেতুতে প্রথম স্প্যান বসছে কাল

প্রকাশ:| শুক্রবার, ২৯ সেপ্টেম্বর , ২০১৭ সময় ০৭:১৬ অপরাহ্ণ

এগিয়ে চলছে স্বপ্নের পদ্মা সেতুর কাজ। শনিবার সেতুটির প্রথম স্প্যানটি বসানো হবে। এমন আরও ৪১টি স্প্যান বসানো হলে শেষ হবে পুরো সেতুর কাজ। প্রথম দিকে স্প্যানের রং সোনালি হওয়ার কথা থাকলেও এখন তা ধূসর করা হয়েছে। ফলে পদ্মা সেতুটি দেখতে সোনালি রঙের না হয়ে ধূসর রঙের হবে।

 

পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, গত আগস্ট মাস পর্যন্ত এই সেতুর ৪৬.৫ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। সেতুর জাজিরা পয়েন্টের ৩৭ ও ৩৮ নং পিলারের কাজ সম্পন্ন হওয়ায় আগামী ৩০ তারিখ সকাল ১০টায় প্রথম স্প্যান বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে। এর মধ্য দিয়ে সরকার প্রতিশ্রুত সময়ের মধ্যে পদ্মা সেতু জনগণের জন্য খুলে দেওয়া সম্ভব হবে বলে আমরা আশাবাদী।

 

ইতোমধ্যে পদ্মা সেতুর মাওয়া কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে নদীপথে শরীয়তপুরের জাজিরা পয়েন্টে স্প্যান এসে পৌঁছেছে বলেও জানান তিনি।

 

পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্প সূত্রে জানা যায়, আগস্ট ২০১৭ পর্যন্ত পদ্মা সেতুর মোট ৪৬.৫ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মা সেতুতে ৪২টি পিলার থাকবে। এর মধ্যে শরীয়তপুরের জাজিরা প্রান্তের ৩৭ ও ৩৮ নম্বর পিলারের কাজ পুরোপুরি সম্পন্ন হয়েছে। এ দুটি পিলারের ওপর স্প্যান বসিয়ে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজের অগ্রগতি দৃশ্যমান করা হবে।

 

পদ্মা সেতুর স্প্যান বুধবার মাওয়া থেকে জাজিরা এসে পৌঁছায়। স্প্যানটি এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যার নিচের অংশ দিয়ে ট্রেন এবং ওপরের অংশ দিয়ে সড়ক পথে যানবাহন চলাচল করবে। আর এর মধ্য দিয়ে দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের দীর্ঘদিনের জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটতে যাচ্ছে।

 

৬.১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মা সেতু ২০১৮ সালের শেষ নাগাদ জনসাধারণের জন্য খুলের দেওয়া হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। দেশের সবচেয়ে বড় এ প্রকল্পের নির্মাণকাজ ২০১৫ সালের ১২ ডিসেম্বর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সম্পূর্ণ নিজস্ব অর্থায়নে ২য় আরডিপিপি অনুযায়ী নির্মাণ ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে ২৮ হাজার ৭৯৩ কোটি ৩৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা। সূত্র-বাসস


আরোও সংবাদ