পটিয়া শাহ্ মালেকীয়া দরবার শরীফে শোহাদায়ে কারবালা মাহফিল

প্রকাশ:| বুধবার, ৪ অক্টোবর , ২০১৭ সময় ০৮:০১ অপরাহ্ণ

পটিয়া মনসা শাহ্ মালেকীয়া দরবার শরীফে পাক পঞ্জেতন নূর জামে মসজিদে পবিত্র শোহাদায়ে কারবালা মাহফিল দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন নায়েবে গাউছে মুখতার হযরত গোলাম মর্তুজা মুহাম্মদ এয়াহিয়া আল-মালেকী আল জিলানী শাহ (ম.জি.আ)’র ছদারতে ৩ অক্টোবর মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান মেহমান ছিলেন কুতুব শরীফ দরবার শরীফের যুগ্ম পরিচালক শাহজাদায়ে গাউছে মুখ্তার শাহজাদা আব্দুল করিম আল-কুতুবী (ম.জি.আ.)। প্রধান আলোচক ছিলেন হযরত হযরত চিকন খলিফা ছিদ্দিক আহমদ দাখিল মাদ্রাসার সুপার আলহাজ্ব মাওলানা কাজী হাফেজ আহমদ আলকাদেরী। বিশেষ বক্তা ছিলেন হযরত আবু বকর ছিদ্দিক (রা.) শাহ্ মালেকীয়া সুন্নীয়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাওলানা আব্দুল মাবুদ আলকাদেরী, ছোবহানিয়া আলিয়া কামিল মাদ্রাসার আরবী প্রভাষক হাসানুল হক নঈমী, কানাইমাদারী কাদেরীয়া মাদ্রাসার আরবী প্রভাষক মাওলানা মজিবুর রহমান আলকাদেরী, আহসানুল উলুম গাউসিয়া কামিল মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ মাওলানা মুফতি আইয়ুব আনাসারী, শাহ্ মালেকিয়া দারবার শরীফ ওলামা পরিষদের সভাপতি মাওলানা আবু তাহের শাসমী, মাওলানা মাহমুদুল হক, মাওলানা ইয়াছিন আনসারী আলমাদানী প্রমুখ। মাহফিলে বক্তারা বলেন, পাপিষ্ঠ ইয়াজিদ ও তার দোসরেরা ৬১ হিজরীতে ইরাকের কারবালা প্রান্তরে ফুরাত নদীর তীরে সাইয়্যিদুশ শোহাদা ইমাম হুসাইন ও অন্যান্য আহলে বায়াতে রাসূল (দ.) গণকে শহীদ করে নবীর দুশমন হিসেবে সাব্যস্ত হলো। এবং এখনো যারা পাপিষ্ট ইয়াযিদের অনুসারী রয়েছে তারাও প্রিয় নবীর দুশমন। তাদের সাথে মহান আল্লাহ্, প্রিয় নবী (দ.) ও ইমানদার মুসলমানগণের কোন সম্পর্ক হতে পারে না।


আরোও সংবাদ