পটিয়ায় প্রতীক নিয়ে প্রার্থীদের মধ্যে ক্ষোভ: উট পাখি নিয়ে কাড়াকাড়ি

প্রকাশ:| সোমবার, ৭ ডিসেম্বর , ২০১৫ সময় ০৯:২২ অপরাহ্ণ

পৌরসভা নির্বাচন
শফিউল আজম, পটিয়া: পটিয়া পৌরসভা নির্বাচনে কাউন্সিলর প্রার্থীদের জন্য নির্ধারিত প্রতীক নিয়ে চলছে ক্ষোভ চরম অসন্তোষ। নির্বাচন কমিশন থেকে নির্ধারিত এসব প্রতীক নিয়ে কাউন্সিলর প্রার্থী ও সংরক্ষিণ মহিলা আসনের কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে অসন্তোষ ও ক্ষোভ বিরাজ করছে। কাউন্সিলরদের জন্য বরাদ্ধকৃত প্রতীকগুলোর মধ্যে উট পাখি প্রতীক নিয়ে কাউন্সিলরদের মধ্যে যে কাড়াকাড়ি’র সৃষ্টি হয়েছে।

জানাগেছে, আসছে ৩০ডিসেম্বর দেশব্যাপী পৌরসভা নির্বাচন। এ নির্বাচনে কাউন্সির প্রার্থীদের জন্য বরাদ্ধকৃত প্রতীক নিয়ে কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে চরম অসন্তোষ ও ক্ষোভ বিরাজ করছে। অধিকাংশ প্রার্থীর পছন্দের প্রতীক দেখা যাচ্ছে উট পাখি ও পাঞ্জাবী। সুন্দর ও ভোটারদের মধ্যে অধিক গ্রহণযোগ্য প্রতীক না পেয়ে অধিকাংশ প্রার্থীরাই তাদের প্রছন্দের প্রতীক হিসেবে উট পাখি’কে বেঁচে নিয়েছে। দেখা গেছে উট পাখি প্রতীকের কদর প্রায় সব কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে। এসব প্রতীক নিয়ে এলাকায় ভোটার ও প্রার্থীদের মধ্যে হাস্যরসেরও সৃষ্টি হয়েছে। কাউন্সিলর প্রার্থীদের অভিযোগ সাধারণ আসনের কাউন্সিলর প্রার্থীদের জন্য বরাদ্ধকৃত ১২টি প্রতীকের মধ্যে উট পাখি ও পাঞ্চাবী ছাড়া বাকী ১০টি প্রতীকই অষ্পস্ট ও সাধারণ ভোটারদের মধ্যে ব্যালট পেপারে দ্বিধাদ্বন্দপূর্ণ। যার ফলে যেসব কাউন্সিলর প্রার্থী এসব প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন তারা ভোটারদের কাছে জনপ্রিয় হলেও বয়স্ক ও মহিলা ভোটাররা প্রতীক না চিনে ভুল প্রতীকে সীল মারার কারণে হেরে নির্বাচনে হেরে যাওয়ার সম্ভাবনা বেশী থাকবে। এদিকে কাউন্সিলর প্রার্থীদের জন্য বরাদ্ধকৃত বোতল প্রতীক নিয়ে ভোটার ও প্রার্থীদের মধ্যে নানা হাস্যেরসের সৃষ্টি হয়েছে। প্রতীকটি নিয়ে ভোটারদের মধ্যে চলছে নানা মন্তব্য। অধিকাংশ কাউন্সিলর প্রার্থীই তাদের জন্য বরাদ্ধকৃত প্রতীকের বিষয় নিয়ে হাতাশা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। সংরক্ষিত মহিলা আসনের কাউন্সিলর প্রার্থীরাও তাদের জন্য বরাদ্ধকৃত প্রতীকের বিষয়ে অসন্তোষ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

এ বিষয়ে পটিয়া পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী তরুণ ব্যবসায়ী ও যুবলীগ নেতা শেখ সাইফুল ইসলাম জানান, কাউন্সিলরদের জন্য বরাদ্ধকৃত প্রতীকের মধ্যে ঢেঁড়স, স্ক্রুডাইভার, টিউবলাইট ও গাজর ব্যালট পেপারে অনেকটা একই দেখা যাবে। যার ফলে বয়স্ক পুরুষ ও মহিলা ভোটাররা ভুল করে পছন্দের প্রতীকের পরিবর্তে ভিন্ন প্রতীকে সীল মারবে। অপর দিকে স্পষ্ট প্রতীক হিসেবে উট পাখি ও পাঞ্জাবী নিয়ে কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে একধরণের কাড়াকাড়ি চলছে। বিষয়টি নির্বাচন কমিশনের পূণবিবেচনা করা উচিত।