পটিয়ায় পৌর কাউন্সিলরের আ.লীগে যোগদানের গুঞ্জন

প্রকাশ:| শুক্রবার, ৪ সেপ্টেম্বর , ২০১৫ সময় ০৫:৫৯ অপরাহ্ণ

শফিউল আজম, পটিয়া প্রতিনিধি॥

পটিয়া পৌরসভা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি প্রভাবশালী ছাত্রনেতা ও পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিল, বিএনপির সাবেক সাংসদ গাজী মোহাম্মদ শাহজাহান জুয়েলের ঘনিষ্টজন হিসেবে পরিচিত মো. আমির হোসেন আওয়ামীলীগে যোগদানের ব্যাপক গুঞ্জন শুনা যাচ্ছে। গত কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন রাজনৈতিক অঙ্গন, সাংবাদিক মহল ও এলাকার সচেতন মহলে এ গুঞ্জন ভেসে বেড়াচ্ছে।

পটিয়া পৌরসভা যুবলীগের এক নেতা জানান, পৌরসভা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ও ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আমির হোসেন গত এক সপ্তাহ ধরে আওয়ামীলীগে আনুষ্ঠানিক যোগদানের উদ্দেশ্যে রাজধানীতে অবস্থান করছেন। সেখানে তিনি এমপি হোস্টেলে গিয়ে পটিয়ার সাংসদ সামশুল হক চৌধুরীর হাতে ফুল দিয়ে আওয়ামীলীগে যোগদানের চেষ্টা চালায়।

জানা যায়, আমির হোসেনকে আওয়ামীলীগে যোগদান করানোর ব্যাপারে মধ্যস্থতা করছেন নগরীর প্রভাবশালী ব্যবসায়ী নেতার ভাতিজা মো. সরওয়ার নামের ছাত্রলীগের সাবেক এক নেতা।

সুত্রটি আরো দাবি করেন, এমপি সামশুল হক চৌধুরী আমির হোসেনের প্রতি নাখোশ থাকায় সে বার বার চেষ্টা করার পরও এমপি তাকে দেখা করার সুযোগ দেননি। সেখানে পৌরসভা আওয়ামীলীগ নেতা ও সাবেক ছাত্র নেতা গোফরান রানা ও দক্ষিণ জেলা যুবলীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক মো. নাজিম উদ্দীন পারভেজও উপস্থিত ছিলেন বলে সুত্রটি দাবি করেন।

চট্টগ্রাম সিটিকর্পোরেশনের নব নির্বাচিত মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের দুবাইতে সংবর্ধনা থাকায় এবং সামশুল হক চৌধুরী এমপি মেয়রের সফর সঙ্গী হওয়ায় এ বিষয়ে এমপির সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পৌরসভা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ও ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আমির হোসেন বলেন, আমি আওয়ামীলীগে যোগদান করতে যাব কেন? আওয়ামীলীগ বর্তমানে দেওলিয়া হবার পথে। আমি দেওলিয়া হওয়া একটি রাজনীতি করবো কেন।

রাজধানীতে যাওয়ার উদ্দেশ্য বা কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার নির্বাচনী এলাকা ও কয়েকজন আত্বীয়ের জম্মনিবন্ধন সার্টিফিকেটে ভুল থাকায় সংশোধনের উদ্দেশ্যে ঢাকা আসা। তিনি বলেন, সামনে পৌরসভা নির্বাচনে যুবলীগের এক নেতা আমার প্রতিদ্বন্ধি রয়েছে। তিনিই কৌশলী আমার সুনাম নষ্ট করার জন্য আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপপ্রচার চালাচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামীলীগ নেতা গোফরান রানা বলেন, আমির হোসেনের আওয়ামীলীগে যোগদান করার বিষয়ে কিছু জানিনা। তিনি তার ব্যক্তিগত কাজে ঢাকা যেতে পারে। কেউ হয়ত কোন স্বার্থসিদ্ধির জন্য এ বিষয়টি কৌশলে প্রচার করে বেড়াচ্ছে।

জানতে চাইলে দক্ষিণ জেলা যুবলীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক মো. নাজিম উদ্দীন পারভেজ বলেন, আমির হোসেনের সাথে আমার ঢাকা পরিবহন পুল অফিসে দেখা হয়। আমি জম্ম নিবন্ধন কার্ড সংশোধনের উদ্দেশ্যে সেখানে গেলে দুজনের সাথে সেখানে দেখা হয়ে যায়। সেখানে দুজনেই মোবাইলে সেলফি তুলে ফেসবুকে দিই। এর বাইরে আওয়ামীলীগে যোগদান বা অন্য কোন বিষয়ে আমি অবগত নই।

উল্লেখ্য ২০১৪ সালের মাঝামাঝি সময়ে উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হক, জাতীয় পার্টি নেতা ফেরদৌস কুরেশী, পৌরসভা বিএনপি নেতা ও পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সির আবু ছৈয়দ, পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও জেলা ছাত্রসমাজের সহ সভাপতি শফিউল আলম সাংসদ সামশুল হক চৌধুরীর হাতে ফুল দিয়ে আওয়ামীলীগে যোগদান করেছেন।