পটিয়ায় নারীদের কল্যাণে ‘নারী জাগরণ সংস্থা’ কাজ করে যাচ্ছে

প্রকাশ:| রবিবার, ৪ সেপ্টেম্বর , ২০১৬ সময় ০৮:৫২ অপরাহ্ণ

নারী জাগরণপটিয়া প্রতিনিধি॥ পটিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আবুল হাসেম বলেছেন, ‘নারী জাগরন সংস্থা’ নারী সমাজের কল্যানে দীর্ঘদিন ধরে ভূমিকা রেখে আসছে। নারীদের মধ্য থেকে অশিক্ষা-কুশিক্ষা দূরীকরণ, নির্যাতন ও অন্যায় প্রতিরোধ, সমাজ সংক্রান্ত সমস্যা, বিবাহ-তালাক সম্পর্কে সচেতনতা, দু:স্থদের সহায়তা, মহিলাদের স্বাবলম্বী করে তোলার ক্ষেত্রে কাজ করে যাচ্ছে। সংস্থার সভানেত্রী পারভীন আকতার শুধু পটিয়ার নয় সারা দেশে নারী আন্দোলনের পথিকৃৎ। অবহেলিত নারীসমাজের অবর্ণনীয় দুর্গতির চিত্র তুলে ধরে নারীদের উন্নত জীবনের স্বপ্ন সামনে এনে উচুঁ স্তরের রুচি ও মূল্যবোধের আবেদন নিয়ে ৩৮ বছর পূর্বে এ সংস্থা প্রতিষ্ঠা হয়েছিলো। পথে ঘাটে, ঘরে বাইরে নারীর উপর সহিংসতা, লাঞ্চনা, অপমানের কারনে নারীত্বের সম্মান প্রতিনিয়ত হেয়প্রতিপন্ন হচ্ছে। তাই নারী জাগরন সংস্থার কাজকে আরো জোরদার করতে নারী সমাজকে জাগিয়ে সংস্থার কাতারে শামিল করতে সকলের এগিয়ে আসা প্রয়োজন।
তিনি রবিবার বিকেলে এনজিও ফাউন্ডেশনের আর্থিক সহযোগীতায় পটিয়া নারী জাগরন সংস্থার উদ্যোগে ৫ম ব্যাচের কম্পিউটার প্রশিক্ষনার্থীদের সনদ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন। সংস্থার মুন্সেফবাজার কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, পটিয়া যুগ্ম জেলা জজ আদালতের এপিপি এডভোকেট বদিউল আলম, সাংবাদিক সমিতির সেক্রেটারী হারুনুর রশিদ ছিদ্দিকী, সংস্থার কাউন্সিলর ও প্রথম আলো সাংবাদিক আবদুর রাজ্জাক, সংস্থার কাউন্সিলর সমকাল সাংবাদিক আহমদ উল্লাহ, নারী জাগরন সংস্থার সাধারন সম্পাদক জেসমিন আকতার তুলি, সহ সভাপতি সুফিয়া বেগম, কোষাধ্যক্ষ দিলোয়ারা বেগম, রহিমা ইসলাম, ছেনোয়ারা বেগম, খদিজা আকতার সুমি প্রমুখ। পরে তিনি ৫ম ব্যাচের ২০ জন কম্পিউটার প্রশিক্ষনার্থীদের মাঝে সনদ ও বিভিন্ন জাতের ফলজ ও বনজ বৃক্ষের চারা বিতরণ করেন।