নৌকা মার্কায় ভোট দিন : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশ:| বুধবার, ৩১ জুলাই , ২০১৩ সময় ০৪:৫৯ অপরাহ্ণ

উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকা মার্কায় ভোট চাইলেন আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা।pm joyjpg

আজ বুধবার রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলায় সরকারি হাইস্কুল মাঠে এক জনসভায় প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

জনসভায় সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে আবার জয়ী করতে পীরগঞ্জবাসীর প্রতি আহ্বান জানান। শেখ হাসিনা বলেন, ‘আপনাদের সন্তান সজীব ওয়াজেদ জয় এখানে আছে।’ তাঁর জন্য দোয়া করতে তিনি পীরগঞ্জবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।

পীরগঞ্জের মানুষ আগে কখনো এত উন্নয়ন দেখেনি বলে দাবি করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ”উন্নয়নের ধারা যাতে অব্যাহত রাখতে পারি, এজন্য নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে জয়যুক্ত করবেন।বিগত নির্বাচনে যে ওয়াদা দিয়েছিলাম তার অনেক কিছুই বাস্তবায়ন করেছি। অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে আওয়ামী লীগকে আবারো ভোট দিয়ে ক্ষমতায় আনুন।”

প্রধানমন্ত্রী অভিযোগ করে বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলেই জনগণের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটে। আর বিএনপি ক্ষমতায় এলে খুন, ধর্ষণ, লুটপাট বেড়ে যায়।

তিনি বলেন, বিএনপি আমলে মানুষ দু’বেলা খাদ্যের জন্য চাল কিনতে পারেনি। অথচ বর্তমান সরকারের আমলে দেশ এখন খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর কৃষকের কৃষিঋণ সহজলভ্য করে দেয়া হয়েছে। প্রত্যেক ইউনিয়নে তথ্যসেবা কেন্দ্র খোলা হয়েছে। মানুষ ঘরে থেকেই চিকিৎসা সেবা পাচ্ছে।

ছেলে জয়ের কাছ থেকে ডিজিটাল পদ্ধতি শেখার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সারাদেশকে ডিজিটাল পদ্ধতির আওতায় আনার কাজ চলছে।

এর আগে বেলা সাড়ে ১২টায় প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী হেলিকপ্টার পীরগঞ্জের ফতেহপুরে নির্মিত অস্থায়ী হেলিপ্যাডে অবতরণ করে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়, পুত্রবধূ ক্রিস্টিনা ওভারমায়ার ও মেয়ে সায়মা হোসেন পুতুল রয়েছেন।

হেলিকপ্টার থেকে নেমে প্রধানমন্ত্রী প্রথমে ফতেহপুরে শ্বশুরালয়ে যান। সেখানে তিনি শাশুড়ির ব্যবহৃত খাটে বসেন। কিছু সময় বিশ্রাম নিয়ে তিনি স্বামী ড. ওয়াজেদ মিয়ার কবর জেয়ারত করেন। বেলা ১২টা ৪০ মিনিট থেকে দুপুর সোয়া ২টা পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী শ্বশুরবাড়িতে অবস্থান করেন। পরে তিনি পীরগঞ্জের কাঁচদহঘাটে করতোয়া নদীর ওপর নির্মিত ওয়াজেদ মিয়া সেতুসহ কয়েকটি স্থাপনা উদ্বোধন করেন।