নোয়াখালীতে দু’গ্রামবাসীর সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত ২৫

প্রকাশ:| শনিবার, ৮ জুলাই , ২০১৭ সময় ১২:১০ পূর্বাহ্ণ

ভাংচুর, লুটপাট, গুলি বর্ষন এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ
মোফাজ্জল হোসেন টিপু, নোয়াখালী প্রতিনিধি ঃ
নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার ছাতারপাইয়া ইউনিয়নের চাঁদা আদায়কে কেন্দ্র করে দু’গ্রামবাসীর সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত ২৫। দোকানপাট ভাংচুর মালামাল লটু পাটের অভিয়োগ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন আনতে সোনাইমুড়ি ও সেনবাগ দু’ থানা পুলিশের ৪৫ রাউন্ড গুলি নিক্ষোপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এলাকায় উত্তোজনা বিরাজ করছে। ঘটনার স্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন রয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলা ছাতার পাইয়া বাজারে এ ঘটনা ঘটে।
আহতরা হলেন মামুন, কামরুল, ছালাউদ্দিন, জাহাঙ্গীর, রুবেল, সজিব, জাকের, খলিল, আজীম, দেলোয়ার, হাশেম, শাকিল, আবুল খায়ের, এছাড়া পুলিশ সদস্যরা হলেন এ এস আই সাইফুল, আজাদ, রুবেল, শেখ ফরিদ, জালাল, ও এ এস আই সাইদুরসহ অন্যরা। আহতদের মধ্য গুরুত্ব আহত মামুনকে ঢাকা একটি প্রাইভেট হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অপর আহতদের নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
স্থানীয় এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ছাতারপাইয়া ইউনিয়নে সোনাকান্দি গ্রামের প্রবাসী ফেরৎ আলী আহম্মদ ইমারত নির্মানের সময় ছাতারপাইয়া পশ্চিম পাড়ার ফয়েজ, সোহেল, জালাল ও তবারক উল্যার নেতৃত্বে ১০/১৫ জনের একদল সন্ত্রাসী বিভিন্ন ধরনের দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে চাঁদা দাবী করে। দাবীকৃত চাঁদা না পেয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে ছাতারপাইয়া বাজারে রাত ৭ থেকে ৯টা পর্যন্ত এ হামলা ভাংচুর ও তান্ডব চলে। এ সময় সোনাকান্দি গ্রামবাসী সন্ত্রাসীদের ধাওয়া করলে উভয় পক্ষে মধ্য ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুরো বাজারে আংতক ছড়িয়ে পড়ে।
স্থানীয় ব্যবসায়ীদের অভিযোগ সংঘর্ষ চলাকালে বাজারে যানবাহন সহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ব্যাপক ভাংচুর লুটপাটের ঘটনা ঘটে।
খবর পেয়ে সোনাইমুড়ি থানা পুলিশ ঘটনার স্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে ব্যর্থ হয়। পরবর্তীতে সেনবাগ থানা পুলিশ ঘটনার স্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে ব্যাপক লাঠিচার্জ করে ৪৫ রাউন্ড গুলি ছুড়ে। দু’পক্ষেকে ছত্রভঙ্গ করে। সংঘর্ষে উভয় পক্ষে বেশ কয়েক জন সহ ৬ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে।
স্থানীয় চেয়ারম্যান আবদুর রহমান জানান, প্রবাসীর বাড়িতে চাঁদা দাবীকে কেন্দ্র করে দু’গ্রামবাসী মধ্য এ সংঘষের্র ঘটনা ঘটে। তিনি ঘটনার সাথে জড়িতদের চিহ্নিত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানান।
এ বিষয় সেনবাগ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হারুনুর রশিদ জানান, পরিস্থিতি বর্তমানে নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্ততি চলছে।