নেভির সমুদ্র ব্যবস্থাপনার সদর দফতরে বন্দুক হামলাকারী অ্যারন অ্যালেক্সিস

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর , ২০১৩ সময় ১০:২৬ অপরাহ্ণ

অ্যারন অ্যালেক্সিসযুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটনে নেভির সমুদ্র ব্যবস্থাপনার সদর দফতরে বন্দুক হামলাকারীকে চিহ্নিত করা হয়েছে।ওয়াশিংটনে হামলাকারী সাবেক নেভি কর্মকর্তা

বিবিসি জানিয়েছে, অ্যারন অ্যালেক্সিস নামের সেই হামলাকারী একজন সাবেক নৌ কর্মকর্তা ছিলেন। পুলিশের গুলিতে অ্যারন ঘটনাস্থলে নিহত হন।

হামলায় নিহত হয়েছেন ১২ জন।

গত সোমবার স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৮টায় অ্যারন বন্দুক হামলা করেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এ ঘটনায় শোক প্রকাশ করে তীব্র নিন্দা জানান। তিনি এ ধরনের হামলার ঘটনাকে কাপুরুষোচিত বলে অভিহিত করেন।

ওয়াশিংটনের মেয়রও এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানান।

হামলার সময় ফায়ারক্র্যাকার অ্যালার্টে কিছু সময়ের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল হোয়াইট হাউস। নৌবাহিনীর দফতরে বন্দুক হামলার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে এক ব্যক্তির ছোড়া আতশবাজি হোয়াইট হাউসের কাঁটাতারের বেড়ায় আটকে গেলে ফায়ার অ্যালার্ম বেজে ওঠে। এ ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে ভারী অস্ত্রশস্ত্রে সুসজ্জিত নিরাপত্তাকর্মীরা হোয়াইট হাউসের চারপাশ ঘিরে ফেলে। কিছুক্ষণের জন্য সেখানের প্রবেশ ও বহির্গমন বন্ধ রাখা হয়।

অন্যদিকে ক্যাপিটল হিলে অবস্থিত কংগ্রেস ভবন থেকে মাত্র এক মাইলের মধ্যে বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটলে সাময়িকভাবে সেখানকার সব কার্যক্রম স্থগিত করা হয়।

স্থানীয় পুলিশ জানায়, এখন পর্যন্ত হামলার কারণ জানা যায়নি। নিহতদের প্রত্যেকেই এ দফতরের কর্মকর্তা ছিলেন। তাদের বয়স ৪৬ থেকে ৭৩-এর মধ্যে।

ওয়াশিংটনের পুলিশ প্রধান ক্যাথি ল্যানিয়ার নিশ্চিত করেন, অ্যারনই একমাত্র হামলাকারী। যিনি মানসিক রোগি ছিলেন।

তিনি জানান, অ্যারন একটি এআর-১৫ সেমি অটোম্যাটিক রাইফেল ব্যবহার করে হামলা করেন। এছাড়াও ঘটনাস্থল থেকে একটি শর্টগান ও হ্যান্ডগান উদ্ধার করা হয়। হ্যান্ডগানটি তিনি ঘটনাস্থলে একটি পুলিশ কর্মকর্তার কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়েছিলেন।

পুলিশপ্রধান ল্যানিয়ার আরও জানান, পুলিশের গুলির মুখেও তিনি তার আক্রমণ অব্যাহত রেখেছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, নাবিকের বেশ ধরে নৌ দফতরে প্রবেশ করেন অ্যারন।

সাবেক নৌ কর্মকর্তা ছিলেন অ্যারন

ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই) জানায়, অ্যারন টেক্সাসের ফোর্ট ওর্থের বাসিন্দা ছিলেন। মার্কিন নৌবাহিনীর সাবেক পেটি অফিসার এবং রিজার্ভ সেনা সদস্য হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ২০০৭ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত তিনি নৌবাহিনীতে কাজ করেন। অ্যারনের বিরুদ্ধে আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করে গুলি করার দুটি অভিযোগ তদন্তাধীন আছে। অসদাচরণের দায়ে ২০১১ সালে তাকে নৌবাহিনীর রিজার্ভ সেনার পদ থেকে বরখাস্ত করা হয়।

অ্যারনের বাবা আলজেরন জানান, তার ছেলে নাইন ইলেভেনের উদ্ধারকর্মীদের একজন ছিলেন। সে দুর্ঘটনা-পরবর্তী মানসিক সমস্যার শিকার হন। এতে হঠাৎ করেই তিনি সব ভুলে যেতেন কিংবা ক্ষোভে উন্মাদের মতো আচরণ করতেন।

নিউইয়র্কের প্রশাসন নিশ্চিত করেছে অ্যারন ২০০১ সালে নাইন ইলেভেনের ধ্বংসযজ্ঞে উদ্ধারকাজে অংশ নিয়েছিলেন। নিউইয়র্কে জন্ম নেওয়া এ কৃষ্ণাঙ্গ আমেরিকান ব্যক্তিগতভাবে বৌদ্ধ ধর্মের চর্চা করতেন। তিনি নিয়মিত টেক্সাসের একটি বৌদ্ধ মন্দিরে ধ্যান করতেন বলেও জানা গেছে।

নিহত হামলাকারী অ্যারন অ্যালেক্সিস। ছবি: এএফপি