‘নিশা দেশাই দুই আনার মন্ত্রী’

প্রকাশ:| শনিবার, ২৯ নভেম্বর , ২০১৪ সময় ১০:৩৯ অপরাহ্ণ

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন, ‘ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সফররত নিশা দেশাই দুই আনার মন্ত্রী, চার আনাও নন। তার সামনে দুইবারের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া যেন শিশুর মতো হাত পেতে বসে আছেন। মনে হচ্ছে নিশা দেশাই বাংলাদেশের ক্ষমতা খালেদা জিয়ার হাতে তুলে দেবেন।’
খুলনা সার্কিট হাউস ময়দানে শনিবার খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন।
তিনি বলেন, কিছুদিন আগে আমি ভারতের দিল্লিতে গিয়েছিলাম। সেখানকার অনেক মন্ত্রীর সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। তাদের কাছে শুনেছি, মোদি মনমোহনের চেয়েও কট্টর আওয়ামী লীগের সমর্থক।
মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান মজীনাকে কাজের লোক মর্জিনা বলেও অভিহিত করেন সৈদয় আশরাফুল ইসলাম। তিনি বলেন, মজীনা কত চেষ্টা করল ৫ জানুয়ারির নির্বাচন বন্ধ করতে। এমনকি শেখ হাসিনা যাতে প্রধানমন্ত্রী না হন সে চেষ্টাও করেছে। তার সকল চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে তিনি চলে যাবেন। আর হয়ত কোনোদিন তিনি বাংলাদেশে আসবেন না। তাই কাজের লোক দিয়ে ক্ষমতা পরিবর্তন হবে না।
সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশ এখন আর আগের অবস্থায় নেই। পৃথিবীর এমন কোনো শক্তি নেই যে, নির্ধারিত সময়ের এক সেকেন্ড আগে শেখ হাসিনাকে তার ক্ষমতা থেকে নামাতে পারে। তিনি খালেদা জিয়াকে উপদেশ দিতে গিয়ে বলেন, বিদেশী প্রভুদের দ্বারে ধর্ণা দিয়ে লাভ নেই। এক বছর হয়ে গেছে আর আছে চার বছর। আগামী নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত হোন।
বিএনপির সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমান সম্পর্কে তিনি বলেন, তারেক রহমান বঙ্গবন্ধুর নামে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা করার কথা বলেছেন। সে জানে না মৃত ব্যক্তির নামে কোনো মামলা হতে পারে না। এই সামান্য জ্ঞান যার নেই সে আবার ভবিষ্যতের নেতা হবে কীভাবে?
সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি তালুকদার আব্দুল খালেক এমপি। তার আগে সম্মেলন উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম এমপি।
সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন- আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফর উল্লাহ, কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ এমপি, কেন্দ্রীয় কৃষি বিষয়ক সম্পাদক সাবেক মন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক, কেন্দ্রীয় তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক এ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হারুনুর রশিদ, সাধারণ সম্পাদক এস এম মোস্তফা রশিদ সুজা এমপি, কেন্দ্রীয় নেতা এস এম কামাল হোসেন এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ এমপি। সম্মেলনে প্রধান বক্তা ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক এমপি।