নির্মম নির্যাতন ও চিকিৎসা না দিয়ে হত্যা করছে পুলিশ-সালেহা

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ২৯ জানুয়ারি , ২০১৫ সময় ০১:৪১ পূর্বাহ্ণ

চট্টগ্রাম কোতোয়ালি থানার কদমতলীতে গত ২০ জানুয়ারি রাতে দুর্বৃত্তদের আঘাতে আহত সাকিবুল ইসলামকে নির্মম নির্যাতন ও চিকিৎসা করতে না দিয়ে হত্যা করছে বলে অভিযোগ নিহতের মা সালেহা বেগমের।

বিস্ফোরণে আহত ছাত্রশিবির কর্মী সাকিবুল ইসলাম মারা গেছেগণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে সালেহা বেগম বলেন, ‘আমার সন্তান সাকিবুল ইসলাম প্রতিদিনের মতো টিউশনি করে বাড়ি ফেরার সময় দুর্বৃত্তদের হামলায় আহত হয়। এ সময় পুলিশ তাকে আহত অবস্থায় গ্রেপ্তার করে। কিন্তু গ্রেপ্তারের পর চিকিৎসা না করে উল্টো দীর্ঘ ৬ ঘণ্টা তাকে নির্যাতন করে। এই বর্বর নির্যাতনে আমার ছেলের অবস্থা সঙ্কটাপন্ন হয়ে পড়লে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করেনি পুলিশ। আমরা বার বার তার জীবন বাঁচাতে উন্নত চিকিৎসার জন্য আবেদন জানালেও পুলিশ কতৃপক্ষ কর্ণপাত করেনি। পুলিশের ভয়াবহ নির্যাতন ও চিকিৎসা করতে না দেয়ায় আমার ছেলে ইন্তেকাল করে।’

তিনি বলেন, ‘যদিও আমার ছেলে কোনো অন্যায় করেনি তবুও পুলিশের হেফাজতে সে থাকায় মানবিক সাহায্যটুকু পাবো এমনটি আমরা আশা করে ছিলাম। কিন্তু পুলিশের এই অমানবিক নির্মম হত্যাযজ্ঞ আমাদের বাকহীন করে দিয়েছে। আমার জানা মতে, সে কোনো অন্যায় করেনি। আর যদি আমার ছেলে কোনো অন্যায় করেই থাকে, তাহলে আইনের মাধ্যমে তার বিহিত করার কথা ছিল। কিন্তু আইনের রক্ষক হয়ে পুলিশ যেভাবে আমার ছেলেকে নির্যাতন ও অমানবিক অবহেলা করে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিয়েছে তাতে পুলিশের প্রতি আমাদের আস্থা হারিয়ে গেছে। আর যেন কোনো মায়ের বুক খালি না হয় তার জন্য আমি অবিলম্বে নির্যাতন ও অবহেলাকারী পুলিশ সদস্যদের বিচার দাবি করছি। একইভাবে এমন ঘটনা যেন আর না ঘটে সে জন্য কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণে আমি সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।’