‘নির্দলীয় সরকারের দাবি এড়ানো যাবে না’

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১২ জুলাই , ২০১৩ সময় ১০:৩৮ অপরাহ্ণ

সিটি নির্বাচন দলীয় সরকারের অধীনে নিরপেক্ষ হয়েছে-এই ‘ধুঁয়া’ তুলে নির্দলীয় সরকারের দাবি এড়ানো যাবে না বলে fok_52163হুঁশিয়ারি দিয়েছে প্রধান বিরোধীদল বিএনপি।’নির্দলীয় সরকারের দাবি এড়ানো যাবে না’

শুক্রবার এক ইফতার পার্টির আলোচনা সভায় দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর একথা বলেন।

তিনি বলেন, “পাঁচটি সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনের ফল নিজেদের পক্ষে নিতে সরকার অনেক চেষ্টা করছিলো।”

জনগণের ঐক্যবদ্ধ প্রয়াসে তারা এতে ব্যর্থ হয়েছে বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, “জনগণ সরকারের প্রতি অনাস্থা জানিয়েছে। এখন সরকার ওইসব নির্বাচনের ধুঁয়া তুলে সংসদ নির্বাচন নিজেদের অধীনে করার যুক্তি দেখাচ্ছে।”

কাকরাইলে ঈসা খাঁ হোটেলে ১৮ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক খেলাফত মজলিশের উদ্যোগে এই ইফতার পার্টি হয়।

দলের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মাওলানা মুহাম্মদ ইসহাকের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন দলের মহাসচিব অধ্যাপক আহমেদ আবদুল কাদের।

এই ইফতারে উপস্থিত ছিলেন জামায়াতে ইসলামীর কর্মপরিষদের সদস্য আবদুল হালিম, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির শফিউল আলম প্রধান, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির রেদোয়ান আহমেদ, শাহাদাত হোসেন সেলিম, ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির খন্দকার গোলাম মুর্তজা, আলমগীর মজুমদার, লেবার পার্টির মুস্তাফিজুর রহমান ইরান, ন্যাপের জেবেল রহমান গানি, গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া, হেফাজতে ইসলামীর মাওলানা মুহাম্মদ হাবিবুল্লাহ,প্রয়াত মুফতি ফজলুল হক আমিনীর ছেলে মাওলানা আবুল হাসনাত আমিনী প্রমুখ।

মির্জা ফখরুল বলেন, “স্পষ্টভাষায় বলতে চাই, গণতন্ত্র চাইলে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের কোনো বিকল্প নেই। ঐক্যের মধ্য দিয়ে জনগণ নির্দলীয় সরকার প্রতিষ্ঠা করবেই।”

নির্দলীয় সরকার ব্যবস্থা সম্পর্কে তিনি বলেন, “রাজনৈতিক দলের মধ্যে অবিশ্বাস ও অনাস্থার কারণে এই ব্যবস্থা সংবিধানে সংযোজন করা হয়েছিলো। দেশের মানুষের কাছে এটি একটি মীমাংসিত বিষয় ছিলো। কিন্তু সরকার পরিকল্কিপ্পতভাবে আবার ক্ষমতায় আসার লক্ষ্যে সংবিধান থেকে তা তুলে দেয়। দেশের ৯৫ ভাগ মানুষ নির্দলীয় সরকারের অধীনেই নির্বাচন দেখতে চায়।”

গণতান্ত্রিক দেশে যেভাবে নির্বাচন হয়, আগামী নির্বাচন সেভাবেই বাংলাদেশে হবে- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এই বক্তব্যের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, “প্রধানমন্ত্রীকে বলব, আপনি কি বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক পরিবেশ বজায় রাখতে পেরেছেন।”

তিনি বলেন, “লন্ডনে বসে আপনি ( প্রধানমন্ত্রী) এ কথা বলেছেন। ব্রিটেনের সরকার বিরোধী দলীয় নেতার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেয়া হয় না। কিংবা ইলিয়াস আলী, চৌধুরী আলমের মতো রাজনৈতিক নেতাদের গুম করে ফেলার নজিরও সেদেশে নেই।”

১৮ দলীয় জোটের বক্তব্য পরিস্কার- আগামী নির্বাচন নিদর্লীয় সরকারের অধীনে হতে হবে বলে তিনি আবারও উল্লেখ করেন।