নিরবিচ্ছিন্নভাবে পানি বিদ্যুৎ গ্যাস সরবরাহের দাবিতে মানববন্ধন

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১৯ সেপ্টেম্বর , ২০১৪ সময় ০৮:৪৪ অপরাহ্ণ

dr.sশুক্রবার সকালে চট্টগ্রামে নিরবিচ্ছিন্নভাবে পানি বিদ্যুৎ গ্যাস সরবরাহের দাবিতে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সামনে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। নগর বিএনপির ব্যানারে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, ‘সরকার কুইক রেন্টালের নামে হাজার হাজার কোটি টাকার লুটপাট করছে। যে কারণে বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকাণ্ড ভেঙে পড়েছে। বিদ্যুৎ বিভাগে এখন হরিলুট চলছে। বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো ঠিকমত গ্যাসের অভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে পারছে না। এ অবৈধ সরকারের চরম ব্যর্থতার কারণে দেশের জনগণের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। গ্রাহকের কাছ থেকে মিটারের ইউনিট প্রাপ্ত বিলের চেয়ে বাড়তি বিল দিয়ে গ্রাহকের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।’

শুক্রবার সকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব চত্বরে চট্টগ্রামে নিরবিচ্ছিন্নভাবে পানি-বিদ্যুৎ-গ্যাস সরবরাহের দাবিতে এক মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি ও অঙ্গসংগঠন এই কর্মসূচির আয়োজন করে।

বিএনপির এ নেতা বলেন, ‘অবিলম্বে চট্টগ্রামবাসীর দুর্ভোগ লাগবে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সমস্যার তড়িৎ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে, গ্যাস সরবরাহ করতে হবে, ওয়াসার পানি নিয়মিত সরবরাহ করতে হবে। অন্যতায় চট্টগ্রামবাসীর দাবি আদায়ে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে বিএনপি বিদ্যুৎ, গ্যাস ও ওয়াসা ঘেরাওসহ হরতাল, অবরোধের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।’

তিনি বলেন, ‘সরকারের মন্ত্রীরা বিদ্যুৎ উৎপাদন ১০ হাজার মেগাওয়াটের কথা বললেও দেশের বিদ্যুতের চাহিদা পূরণ করতে এ অবৈধ সরকার ব্যর্থ হয়েছে। বন্দর নগরী চট্টগ্রামের ২৫০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস দিতে ব্যর্থ হওয়ার কারণে বন্ধ হয়ে গেছে অনেক নতুন পুরাতন শিল্পকারখানা। সরকারের ব্যর্থতার কারণে ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে শিল্প কারখানাগুলো।’

শাহাদাত হোসেন বলেন, ‘এ অবৈধ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রামের উন্নয়ন চায় না। তিনি চট্টগ্রামের উন্নয়নের দায়িত্বভার নিজের কাঁধে নিয়ে চট্টগ্রামবাসীর সঙ্গে বার বার বিমাতাসুলভ আচরণ করছেন। চট্টগ্রাম বাংলাদেশের বাণিজ্যিক রাজধানী করা হলেও তা পুর্ণাঙ্গভাবে বাস্তবায়ন করে নাই। চট্টগ্রাম বন্দর নগরী ও শিল্প বাণিজ্য নগরী গ্যাস-বিদ্যুতের অভাবে নতুন কোনো শিল্প কারখানা গড়ে উঠে নাই পক্ষান্তরে পুরাতন শিল্পকারখানাগুলো বন্ধ হয়ে গেছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘চট্টগ্রামে দীর্ঘদিন ধরে চলছে পানি-বিদ্যুৎ-গ্যাসের সমস্যা। চট্টগ্রামে বিদ্যুতের লোডশেডিং এতে বেশি হচ্ছে যে, জনগণ রাস্তায় নামতে বাধ্য হচ্ছে। দীর্ঘ ৫-১০ দিন ধরে বিদ্যুতের ব্যাপক হারে লোডশেডিং, পানি-গ্যাসের সমস্যায় জর্জরিত নগরবাসী। কিন্তু চট্টগ্রামের মন্ত্রীরা তাদের আখের গোছাতে ব্যস্ত। চট্টগ্রামবাসীর সমস্যা সমাধানে তাদের কোনো মাথাব্যথা নাই।’
নগর বিএনপির সাবেক ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ আলী এতে সভাপতিত্ব করেন। এতে অন্যান্যের মধ্যে ডবল মুরিং থানা বিএনপির সভাপতি এসএম সাইফুল আলম, নগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন দিপ্তি, নগর তাঁতী দলের সভাপতি সভুক্তগীন ছিদ্দিকী মক্কি, বিএনপি নেতা হারুন জামান, জি এম আইয়ুব খান, এস এম সালাউদ্দিন, কামরুল ইসলাম, মহিলা দলের সভাপতি কাউন্সিলর মনোয়ারা বেগম মনি, নগর ছাত্রদল সভাপতি গাজী সিরাজ উল্লাহ, বেলায়েত হোসেন বুলু বক্তব্য রাখেন।