নিখোঁজ যুবকদের কয়েকজনের খোঁজ মিলেছে

প্রকাশ:| সোমবার, ১১ জুলাই , ২০১৬ সময় ১০:০৬ অপরাহ্ণ

বেনজীর আহমেদদেশে বিভিন্ন সময়ে ‘নিখোঁজ’ যুবকদের, যারা জঙ্গি দলে ভিড়েছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে, এমন কয়েকজনের বিষয়ে খোঁজ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ। তিনি বলেছেন, তাদের ফিরিয়ে আনতে প্রয়োজন সামাজিক উদ্যোগ।

সোমবার বিকালে রাজধানীর উত্তরায় র‌্যাব হেডকোয়ার্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান তিনি। জনগণের কাছ থেকে অপরাধসংক্রান্ত তথ্য পেতে র‌্যাবের চালু করা নতুন অ্যাপ ‘রিপোর্ট টু র‌্যাব’-এর উদ্বোধন উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনটি আয়োজিত হয়।

নতুন এই অ্যাপ্লিকেশনের বিষয়ে র‌্যাব মহাপরিচালক বলেন, “আমরা মূলত তথ্য সংগ্রহের জন্য এটি করছি। জনগণ এখানে তথ্য জানাতে পারবে পরিচয় গোপন করে।”

র‌্যাবের মহাপরিচালক বলেন, জঙ্গিবাদ একটি বৈশ্বিক সমস্যা, এটাকে সংকীর্ণভাবে দেখার সুযোগ নেই। একজন বিদেশী লেখকের বইয়ের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, , এশিয়া প্যাসিফিক এলাকায় ৪৭টি দেশে জঙ্গিবাদ তৎপর রয়েছে।

গুলশানের আর্টিজানের হামলার ঘটনার পর প্রচারমাধ্যমে প্রকাশিত হচ্ছে বিভিন্ন জায়গা থেকে যুবকদের নিখোঁজ হওয়ার কথঅ। র‌্যাবের ডিজি বলেন, “মিসিং যুবকদের ব্যাপারে কিছু খবর আমরা পেয়েছি, যারা জঙ্গি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে। নিখোঁজ যুবকদের ফিরিয়ে আনতে সামাজিক উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। জঙ্গিবাদ নিয়ে আমরা চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করছি। এ ব্যাপারে আপনাদের সবার সহযোগিতা চাই।”

গুলশানের আর্টিজানে হামলাকারী যুবকরা সবাই বেশ কিছুদিন আগে থেকে পরিবারের কাছে নিখোঁজ ছিলেন বলে পরে জানা যায়। এরপর থেকে এ রকম নিখোঁজ যুবকদের বিষয়ে তৎপর হয় প্রশাসন। সন্দেহ করা হচ্ছে এসব যুবক জঙ্গি দলে নাম লিখিয়েছে।
গণমাধ্যমের প্রশংসা করে র‌্যাবের মহাপরিচালক বলেন, “গুলশানের ঘটনায় টেলিভিশনগুলো সরাসরি সম্প্রচার করতে চেয়েছিল।কিন্তু আমরা নিষেধ করায় তারা আর সরাসরি সম্প্রচার করেনি। এটা ভালো হয়েছে। জাতীয় কোন সমস্যায় সবার এমন ভূমিকাই পালন করা উচিত।”
বাংলাদেশে আইএস-এর অস্বিত্ব প্রসঙ্গে একটি ঘটনার উল্লেখ করে বেনজির আহমেদ বলেন, গত বছর ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জের আইএসের পোস্টারিং করার সময়ে ১২ বছরের একটি ছেলেকে আটক করা হয়। পরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে জানায় ইন্টারনেট থেকে সে আইএসের ছবি পেয়েছে। তার বাবা একটি ধর্মীয় রাজনৈতিক সংগঠনের সঙ্গে জড়িত ছিল। এরপর তার কম্পিউটার চেক করে দেখা যায় সে নিজেই সারাদিন কম্পিউটারে জঙ্গিবাদের বিষয়ে ছবিসহ তথ্য সংগ্রহ করত।”
শোলাকিয়ার হামলায় অভিযুক্ত শফিকের বিষয়ে র‌্যাবের ডিজি বলেন, “তার বিরুদ্ধে চারটি মামলা রয়েছে এবং তার একাধিক সাংগঠনিক নাম রয়েছে যেগুলো আমরা সংগ্রহ করেছি। যে মামলাগুলো শফিকের বিরুদ্ধে ছিল ওই মামলায় তাকে গ্রেপ্তর করতে পারেনি আইন শৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।”
সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন) কর্নেল আনোয়ার লতিফ, প্রশাসন আবদল জলিল মন্ডল, পরিচালক (অপারশেন) কে এম আজাদ, ইন্টেলিজেন্ট আবুল কালাম আজাদ, পরিচালক (প্রশিক্ষণ) জসিম ও আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খানসহ র‌্যাবের বিভিন্ন ব্যাটালিয়নের অধিনায়করা।

এর আগে র‌্যাবের নতুন অ্যাপ ‘রিপোর্ট টু র‌্যাব’ উদ্বোধন করা হয়।


আরোও সংবাদ