নাসাকাকে সরিয়ে মিয়ানমার সীমান্তে লুনপিন

প্রকাশ:| বুধবার, ১৭ জুলাই , ২০১৩ সময় ০৮:১০ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশ মিয়ানমার সীমান্ত থেকে নাসাকা বাহিনীকে সরিয়ে নেয়া হচ্ছে। মিয়ানমার সরকার নাসাকা বাহিনীকে বিলুপ্ত ঘোষণা করার লুনপিনপর বাহিনীর সদস্যদের সরানোর কাজ শুরু হয়েছে। নাসাকার বদলে বাংলাদেশ সীমান্তে সেদেশের আধাসামরিক বাহিনী লুনপিনকে বসানো হচ্ছে। বিজিবির চট্টগ্রাম অঞ্চলের অধিনায়ক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আলী মরতুজা সীমান্ত থেকে নাসাকা বাহিনীকে সরানোর কথা স্বীকার করে বলেছেন, মিয়ানমার সরকার এ বিষয়ে এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানায়নি। তবে বিজিবি বিষয়টি সতর্কতার সাথে পর্যবেক্ষন করছে। বিজিবি নাইক্ষ্যংছড়ি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল মেহেদি হাসান জানান, আমরা যতটুকু জেনেছি সীমান্ত থেকে নাসাকা বাহিনীর অন্যান্য সদস্যদের ইতিমধ্যে সরিয়ে নেয়ার কাজ শুরু হয়েছে। নতুন বাহিনীর সাথে যোগযোগের প্রস্ত্ততি নিচ্ছে বিজিবি। সীমান্তের বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা গেছে, লুনপিন বাহিনীর সদস্যদের সাথে সম্প্রতি আত্মসমর্পন করা বিচ্ছিন্নতাবাদী এএলপির আরো বেশ কিছু সদস্য যোগ করে বর্ডার গার্ড ফোর্স (বিজিএফ) নাম দিয়ে নতুন সীমান্ত রক্ষীবাহিনী গঠন করবে মিয়ানমার।
উল্লেখ্য, ১৯৯১ সালে মিয়ানমার সীমান্তে গোলযোগের ঘটনায় সে দেশের সরকার লুনপিন বাহিনীকে সরিয়ে নাসাকা বাহিনীকে বসায়। সেনাবাহিনী পুলিশ কাস্টম বিভিন্ন বাহিনীর সদস্যদের সমন্বয়ে বিশেষায়িত নাসাকা বাহিনী গঠন করা হয়। এ বাহিনীকে বাংলাদেশের কক্সবাজার ও বান্দরবান সীমান্তে মোতায়েন করা হয়। সম্প্রতি রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতন চালানোসহ নাসাকার বিরুদ্ধে আন্তজাতিক মহল থেকে ব্যাপক অভিযোগ উঠে। গত ১২ জুলাই মিয়ানমার সরকার নাসাকা বাহিনীকে বিলুপ্ত ঘোষণা করে। এদিকে নাসাকাকে সরিয়ে নিয়ে লুনপিন বাহিনীকে বসানোর সিদ্ধান্তে সীমান্তে বসবাসকারী লোকজনদের মধ্যে আতংক উৎকন্ঠা দেখা দিয়েছে। বিজিবি বান্দরবান ও কক্সবাজার সীমান্তে নিরাপত্তা জোরদার করেছে।


আরোও সংবাদ