নারীর অধিকার রক্ষায় বৈষম্যের বিরুদ্ধেসচেতনতা বৃদ্ধি করতে ঐক্যবদ্ধ হউন

প্রকাশ:| বুধবার, ১৬ জুলাই , ২০১৪ সময় ১০:২৩ অপরাহ্ণ

মাহজাবীন মোরশেদ এম.পি
মাহজাবীন মোরশেদ এম.পিজাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান, চট্টগ্রাম মহানগর আহ্বায়ক ও প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য জননেত্রী মাহজাবীন মোরশেদ এম.পি বলেছেন, জাতীয় পার্টির ৯ বছরের শাসনামল ছিল নারী উন্নয়ন, অগ্রগতি ও ক্ষমতায়নের সোনালী সময়। সে সময় দেশে নারী নির্যাতন প্রতিরোধে যৌতুক বিরোধী আইন, এসিড সন্ত্রাস বিরোধী ও বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ আইন প্রণয়নের মাধ্যমে পল্লীবন্ধু এরশাদ নারীর প্রতি সকল প্রকার জুলুম নির্যাতন বন্ধ করতে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করে ছিলেন। এ ছাড়া নারী শিক্ষা সম্প্রসারণে অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত অবৈতনিক শিক্ষা ব্যবস্থা প্রচলন করেছিলেন। এছাড়া স্থানীয় সরকার ও প্রশাসনের বিভিন্ন ক্ষেত্রে নারীর সমমর্যাদা নিশ্চিত করতে নিয়োগ বিধি সহজিকরণ করেছিলেন। বাংলার নারী সমাজ পল্লীবন্ধু এরশাদ পরবর্তী সরকার গুলোর কাছ থেকে যথাযথ মূল্যায়ন না পেয়ে আজ আবারও পল্লীবন্ধু এরশাদকে রাষ্ট্র ক্ষমতায় দেখতে চায়। জাতীয় পার্টি সকল প্রকার নারী নির্যাতন ও নারীর প্রতি সহিংসতার ঘোর বিরোধী। তিনি নারী সমাজকে পল্লীবন্ধু এরশাদের নেতৃত্বে নতুন বাংলা গড়তে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার উদাত্ত আহ্বান জানান।
তিনি ১৬ জুলাই চট্টগ্রাম মহানগর জাতীয় মহিলা পার্টির উদ্যোগে আয়োজিত এক প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। নগর মহিলা পার্টির সভানেত্রী রোকেয়া খানমের সভাপতিত্বে ও রেহানা আক্তার রুপার পরিচালনায় ও আর নিজাম আবাসিকস্থ সংসদ সদস্যের বাসভবনে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা মহানগর জাতীয় মহিলা পার্টির সাংগঠনিক সম্পাদিকা রোকেয়া রহমান।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বাকলিয়া থানা মহিলা পার্টির সভানেত্রী রাবেয়া বসরী বকুল, সাধারণ সম্পাদিকা শাহীন শাবনুর মিনু, বন্দর থানা সাধারণ সম্পাদিকা হোসনে আরা রানি, কোতোয়ালী থানা সভানেত্রী মনোয়ারা বেগম, সাধারণ সম্পাদিকা জাহেদা বেগম, চকবাজার থানা সভানেত্রী শামীম আরা চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদিকা শাহীন আক্তার, আলকরণ ওয়ার্ড সভানেত্রী কোহিনুর আক্তার, ৩৫নং ওয়ার্ড সভানেত্রী রোজিনা আক্তার, সাধারণ সম্পাদিকা সালমা বেগম, নারী নেত্রী দিন আরা আকতার, আলেয়া আক্তার, অর্পনা সেন মনি প্রমুখ।