নারীদের জন্য অক্সফোর্ড এবার পুরোপুরি উন্মুক্ত

প্রকাশ:| শুক্রবার, ৫ জুন , ২০১৫ সময় ০৮:৫৫ অপরাহ্ণ

অক্সফোর্ডবিশ্বের অন্যতম সেরা বিশ্ববিদ্যালয় অক্সফোর্ডে গত বৃহস্পতিবার এক বড় অধ্যায়ের অবসান ঘটলো। ছেলেদের জন্য অক্সফোর্ডের এ বিশেষ কলেজটিতে শুরু হচ্ছে ছেলেমেয়েদের সহশিক্ষা কার্যক্রম। এই সেইন্ট বেনেট হলটি ছিল অক্সফোর্ডের আওতাধীন ছেলেদের জন্য বিশেষায়িত সর্বশেষ কলেজ। এবার সময়ের প্রয়োজনে সেটিতেও অধ্যয়নের সুযোগ পাবেন মেয়েরা। খবর বিবিসি, রয়টার্স।

১৮৯৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়া সেইন্ট বেনেট হলে আন্ডার-গ্র্যাজুয়েট ও গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি লাভের সুযোগ রয়েছে। মূলত সন্ন্যাসীদের পড়াশোনার জন্যই এটি চালু হয়েছিল। এটি ছিল একটি স্থায়ী ‘প্রাইভেট হল’ যাতে ভর্তির সুযোগ পেতেন শুধু ছেলেরাই। যদিও ১৮৭৯ সালেই অক্সফোর্ডে মেয়েরা অধ্যয়নের সুযোগ পেয়েছিলেন। কিন্তু সেইন্ট বেনেট হলটিতে সহশিক্ষার অনুমোদন ছিল না। অথচ অক্সফোর্ড থেকেই শিক্ষালাভ করেছেন মার্গারেট থ্যাচার, অং সান সুচি ও বেনজীর ভুট্টোর মতো নারী ব্যক্তিত্ব। শেষতক ২০১৫ সালে এসে সেই নিয়ম পরিবর্তন করল কলেজটি। গত বৃহস্পতিবার কলেজের ট্রাস্টি বোর্ডের এক সভায় ভোটাভুটির মাধ্যমে সহশিক্ষা চালুর সিদ্ধান্ত হয়।

এ প্রসঙ্গে সেইন্ট বেনেট হলের বর্তমান মাস্টার ওয়েরনার জিঁরোদ বলেন, ‘শুধুমাত্র ছেলেদের জন্য বিশেষ কোনো কলেজ থাকতে পারে না। বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্যও এটি কোনো ইতিবাচক বিষয় নয়। সূতরাং এ পরিবর্তন যুগোপযুগী ও অবশ্যম্ভাবী। এর মধ্য দিয়ে অক্সফোর্ডে নারীসমতার পথে শেষ বাধাটি দূর হলো। কলেজের বর্তমান ও প্রাক্তন ছাত্রদের একটি ক্ষুদ্র অংশ অবশ্য প্রতিবাদ করেছে। তবে এরা আসলে পরিবর্তন প্রত্যাশী নয়। এরা অক্সফোর্ডকে একটি জাদুঘর ভাবতে ভালোবাসে। তবে আমি সেই দলের নই।’

উল্লেখ্য, অক্সফোর্ডে ১৯৭০-এর দশক থেকে একে একে ছেলেদের জন্য বিশেষায়িত কলেজগুলোতে মেয়েদের শিক্ষাগ্রহণের সুযোগ চালু হয়। এমনকি মেয়েদের জন্য নির্ধারিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সহশিক্ষা চালুরও প্রায় এক দশক পার হয়ে গেছে। বাকি ছিল শুধু সেইন্ট বেনেট হল। এবার সেটিতেও চালু হলো ছেলেমেয়ের সহশিক্ষা কার্যক্রম। ২০১৬ সালের অক্টোবর থেকে কলেজটিতে নারী শিক্ষার্থীদের ভর্তি করা হবে।