নানা রঙের আয়োজনে জলকেলি উৎসব

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১৪ এপ্রিল , ২০১৭ সময় ০৯:৫৯ অপরাহ্ণ

শংকর চৌধুরী,খাগড়াছড়ি:
পার্বত্য চট্টগ্রামের বসবাসরত পাহাড়ি জনগোষ্ঠীর প্রাণের উৎসব (বৈসাবি) আর এই উৎসবকে ঘিরে আনন্দের রং ছড়িয়ে পড়েছে খাগড়াছড়ি পুরো জেলায়। ১৪ এপ্রিল থেকে শুরু হয়েছে মারমা সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যবাহী সাংগ্রাইং উৎসব।

সকাল থেকে (ক্যং) বৌদ্ধ বিহারগুলোতে ফুল পূজার মধ্য দিয়ে সাংগ্রাই উৎসবের সূচনা হয়। এ উৎসবের অন্যতম আকর্ষণ ছিল মারমা সম্প্রদায়ের বর্ণাঢ্য সাংগ্রাইং র‌্যালী, (জলকেলি) জলোৎসব। ঐতিহ্যবাহী এই জলকেলি জলোৎসবে তরুণ-তরুণীরা একে অপরকে গায়ে পানি দিয়ে উল্লাস প্রকাশ করে। মারমাদের বিশ্বাস এই পানি উৎসবের মধ্য দিয়ে অতীতের সকল দুঃখ-গ্লানি ও পাপ ধুয়ে-মুছে যাবে সকলের। সে সাথে তরুণ-তরুণীরা একে অপরকে পানি ছিটিয়ে দিয়ে বেছে নেয় তাদের নতুন জীবন সঙ্গীকে।

শুক্রবার জেলা শহরের পানখাইয়াপাড়াস্থ মারমা উন্নয়ন সংসদের মাঠে মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জলন এর মাধ্যমে সাংগ্রাই উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য কুন্দ্রে লাল ত্রিপুরা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, সাবেক চেয়ারম্যান চাইথোঅং মারমা, খাগড়াছড়ি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মীর মুশফিকুর রহমান, ডিজিএফআই অধিনায়ক মো. মাহবুবুর রহমান সিদ্দিকী, জেলা প্রশাসক মো. রাশেদুল ইসলাম, পুলিশ সুপার মো. আলী আহমেদ খান, খাগড়াছড়ি রিজিয়নের ষ্টাফ অফিসার মেজর মোহাম্মদ মুজাহিদুল ইসলামসহ পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য, সামরিক-বেসামরিক উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি ও বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

উদ্বোধন শেষে ঐহিত্যবাহী পোষাক পরিচ্ছদ পরিধান করে শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণ করেন মারমা সম্প্রদায়ের নারী পুরুষ, তরুণ তরুণীসহ শিশু কিশোররা। অন্ন্যদিকে পানখাইয়া পাড়া এলাকাসহ পাড়ায় পাড়ায় চলছে জলকেলি উৎসব, “দ” খেলা, ঘিলা খেলাসহ ঐহিত্যবাহী গ্রামীণ নানা খেলা-ধুলা আয়োজন করা হয়েছে মারমাদের ঐতিহ্যবাহী নৃত্য ও ওপেন কনর্সাটের।

এ বছর বৈসাবি উৎসব উপভোগ করতে খাগড়াছড়িতে দুরদুরান্তর থেকে ছুঠে এসেছে দেশী-বিদেশী বিপুল সংখ্যক পর্যটক।

পাহাড়ের বৈসাবি উৎসব এখন পরিণত হয়েছে সার্বজমিন ও জাতীয় উৎসবে । আর এই উৎসবের মধ্যদিয়ে পাহাড়ের সাম্প্রদায়িক-সম্প্রীতি আরো সু-দৃঢ় হোক এ প্রত্যাশা পার্বত্যাঞ্চলে বসবাসরত পাহাড়ি বাঙ্গালি সকলের।

এর আগে, শুক্রবার সকালে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ থেকে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বাংলা নববর্ষ ১৪২৪ উপলক্ষে পার্বত্য জনপদ খাগড়াছড়িতে বের করা হয়েছে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা। বাঙালীর অভিন্ন সত্তার প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ। মঙ্গল শোভাযাত্রা যেন এ উৎসবের মূল আকর্ষণ।

বাঙালীয়ানার বহিপ্রকাশ ঘটে পহেলা বৈশাখের এই মঙ্গল শোভাযাত্রার মধ্যদিয়ে। মঙ্গল শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন, খাগড়াছড়ি আসনের সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা। এসময় জেলা প্রশাসক মো: রাশেদুল ইসলাম সহ সরকারি বেসরকারি বিভিন্ন দপ্তরের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

মঙ্গল শোভাযাত্রা শেষে পৌর টাউন হল প্রাঙ্গণে স্থানীয় শিল্পীরা পরিবেশনা করেন মনোজ্ঞ সাংস্কৃতি অনুষ্ঠান ।