নানা আয়োজনে বান্দরবানে বঙ্গবন্ধু জন্মদিন উদযাপিত

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১৭ মার্চ , ২০১৫ সময় ১১:১১ অপরাহ্ণ

বান্দরবান প্রতিনিধি॥
নানা আয়োজনে বান্দরবানে বঙ্গবন্ধু জন্মদিন উদযাপিতনানা আয়োজনে বান্দরবানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন উদযাপিত হয়েছে। আজ মঙ্গলবার সকালে জাতীর জনকের ৯৬তম জন্মদিন ও শিশু দিবস’কে ঘিরে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীতে বিভিন্ন স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রীরা অংশ নেয়। পরে শহরের বঙ্গবন্ধু মুক্তমঞ্চে জেলা প্রশাসক মিজানুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে আয়োজিত শিশু সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈ হ্লা। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে জেলা পুলিশ সুপার দেবদাস ভট্টাচার্য, পার্বত্য জেলা পরিষদের মূখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা মমিনুর রশীদ আমিনি, জেলা আওয়ামীলীগের সেক্রেটারী কাজী মুজিবর রহমান, শিশু সংগঠনের সভাপতি মিম আক্তার’সহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক শিশু-কিশোর সংগঠনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
সমাবেশে প্রধান অতিথি ক্যশৈ হ্লা বলেছেন, বাঙালির ইতিহাসের এক অনন্য অসাধারণ ব্যক্তিত্ব শেখ মুজিবুর রহমানের পরিচয়। তিনি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি। স্বাধীন বাংলাদেশে তিনি শোষনহীন,ক্ষুধামুক্ত ও অগ্রসর গণতান্ত্রিক সমাজ গড়তে চেয়েছিলেন। আজকের বাঙালি ও বাংলাদেশে নাগরিকতা তার সেই স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিতে এক নবতর আন্দোলনের মধ্য দিয়ে অগ্রসর হচ্ছেন। সোনার বাংলা গড়তে হলে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধরে রাখতে হবে। প্রতিটি কাজে কর্মে বঙ্গবন্ধর আদর্শের প্রতিফলন ঘটাতে হবে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের আদর্শ বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশ ও জাতির কল্যাণ, শান্তি ও অগ্রগতি নিশ্চিত করা সম্ভব। শিশুদের মাঝে জাতির জনকের জীবনাদর্শ বিকশিত করার প্রয়াস চালানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
এছাড়াও দিবসটি ঘিরে বান্দরবানে পার্বত্য জেলা পরিষদে কেক কেটে কর্মসূচীর শুরু করেন। এছাড়াও শিশু কিশোরদের বিভিন্ন বিষয প্রতিযোগিতা, দোয়া, মিলাদ মাহফিল, সভা এবং সাংস্কতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ………………………………………………………………….
বান্দরবানে আওয়ামীলীগের আনন্দ সমাবেশ
বান্দরবানে জাতীর জনক শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিনে আনন্দ সমাবেশ করেছে আওয়ামীলীগ। আজ মঙ্গলবার বিকালে পৌর আওয়ামীলীগের উদ্যোগে শহরের বঙ্গবন্ধু মুক্তমঞ্চে আনুষ্ঠানিক কেক কাটেন পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি শফিকুর রহমান’সহ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। পরে পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি অমল কান্তি দাশের সভাপতিত্বে আনন্দ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আব্দুর রহিম চৌধুরী, ইসলাম বেবী, সাধারণ সম্পাদক কাজী মুজিবর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মোজাম্মেল হক বাহাদুর, প্রচার-প্রকাশনা সম্পাদক আবুল কালাম, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সামশুল ইসলাম’সহ সহযোগী সংগঠনের নেতারা। সমাবেশে প্রধান বক্তা কাজী মুজিবর রহমান বলেছেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানকে মুক্তিযুদ্ধের ‘খলনায়ক’ আখ্যা দিয়ে বলেন, জিয়া যে স্বাধীনতার পক্ষে ছিলেন সেটা আজও প্রমাণিত নয়। ৭৫-এর পর ক্ষমতা দখল করে ১১ হাজার রাজাকারকে মুক্ত করে দিয়েছিলেন। শাহ আজিজুর রহমানের মতো রাজাকারকে প্রধানমন্ত্রী, আব্দুল আলীমের মতো রাজাকারকে রেলমন্ত্রী বানিয়েছিলেন। গোলাম আযমকে রাজনীতি করার সুযোগ করে দিয়েছিলেন। তিনি বলেন, খালেদা জিয়া রাজনীতি থেকে অনেক দূরে সরে গেছেন। দেশের মানুষের প্রতি তার আস্থা নেই। তাই তিনি মানুষ হত্যা করছেন। গত আড়াই মাসে মানুষ হত্যা, গাড়ি ভাঙচুরসহ সম্পদ ধ্বংসের দায় থেকে মুক্তি পাওয়ার, বাঁচার সুযোগ নেই। আপনি যতই আন্দোলনের হুমকি দেন, যতই বিদেশী প্রভুদের কাছে ধরনা দেন, মানুষ হত্যার দায়ে আপনাকে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে।