নতুন প্রজন্মের কাছে পরিবর্তনের বার্তা পৌঁছে দিতে চাই

প্রকাশ:| রবিবার, ১০ ডিসেম্বর , ২০১৭ সময় ০৯:০৮ অপরাহ্ণ

মুক্তিযুদ্ধের বিজয় উৎসব উদ্যাপন পরিষদের চেয়ারম্যান ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য শেখ মাহমুদ ইছহাক বলেছেন বিজয়ের মাসে নতুন প্রজন্মের কাছে পরিবর্তনের বার্তা পৌঁছে দিতে চাই। তিনি আজ ১০ ডিসেম্বর বিকেলে নগরীর জামালখানস্থ চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে আলহাজ্ব সুলতান আহমদ সম্মেলন কক্ষে নগরীর চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন মিউনিসিপ্যাল মডেল স্কুল এন্ড কলেজ প্রাঙ্গণে ১৩ থেকে ১৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য ৪ দিনব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের বিজয় উৎসব উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরো বলেন গণমাধ্যমকে নতুন প্রজন্মের ভাবনায় মুক্তিযুদ্ধকে নিয়ে সঠিক তথ্য-উপাত্ত উপস্থান করতে হবে। তাদেরকে জানাতে হবে কেন এবং কী কারণে মুক্তিযুদ্ধ হয়েছিল। তাই অপাপবিদ্ধ শিশু-কিশোর ও নতুন প্রজন্মকে নিয়ে আমাদেরকে ভাবতে হবে। এবারের বিজয় উৎসবের প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে ’বিজয় আনন্দে প্রাণের উৎসবে জাগো বাঙালি’। এই উৎসব শুধু আনন্দ আয়োজন ন, আমাদের স্বপ্ন ও প্রত্যাশার প্রাপ্তিযোগের পাঠগ্রহণের কর্মশালা। স্বাভাবিকভাবেই এই কর্মশালায় নতুন প্রজন্মের সন্তানরাই আমাদের বরেণ্য অতিথি। কেননা তাদের হাত ধরেই বাংলাদেশের আগামী পথচলা। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মুক্তিযুদ্ধের বিজয় উৎসব উদযাপন পরিষদের মহাসচিব দিদারুল আলম দিদার। মুক্তিযুদ্ধের বিজয় উৎসব উদযাপন পরিষদের প্রধান সমন্বয়কারী সংস্কৃতিকর্মী খোরশেদ আলম জানান এবারও আমরা এই বর্ণাঢ্য আয়োজনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে নজরুল স্কোয়ার ডিসি হিল প্রাঙ্গণে ৮দিনব্যাপী বঙ্গবন্ধু বইমেলা ও মুক্তিযুদ্ধের বিজয় উৎসব করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু জেলা প্রশাসন অনুমতি না দেয়ায় আমরা স্থান পরিবর্তন করতে বাধ্য হয়েছি। চট্টগ্রামে সংস্কৃতিচর্চার উপর একটি প্রতিপক্ষ অপশক্তি সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্নকারী এই অপশক্তির বিরুদ্ধে আমাদের অবশ্যই রুখে দাঁড়াতে হবে। এই প্রত্যয় নিয়ে এবারের বিজয় উৎসব শুরু হলো। প্রতিবারের মত বঙ্গবন্ধু বইমেলা আয়োজন অনেক প্রতিকূলত অতিক্রম করতে হয়েছে। এবারও তা-ই হলো। আমরা থেমো থাকবো না। ৪দিনব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের বিজয় উৎসবের সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন নগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ও বীর মুক্তিযোদ্ধা নঈম উদ্দিন চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা জাতীয় শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব শফর আলী, নগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমদ নগর আওয়ামী লীগ নেতা মো: ইসা, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা: তিমির বরণ চৌধুরী, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন শিক্ষা ও স্বাস্থ্য স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান কাউন্সিলর নাজমুল হক ডিউক, নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সালাউদ্দিন আহমেদ, কাট্টলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ইকবাল চৌধুরী, নগর যুবলীগ নেতা সুমন দেবনাথ, জাবেদুল আলম সুমন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মামুন, ইয়াছির আরাফাত, ফয়সাল বাপ্পী, হেলাল উদ্দিন আহমেদ, পাহাড়তলী আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাস্টার কামাল উদ্দিন, আওয়ামী লীগ নেতা আবু সুফিয়ান, সংস্কৃতিকর্মী নজরুল ইসলাম মোস্তাফিজ প্রমুখ। আগামী ১৩ ডিসেম্বর বিকাল ৩টায় ৪দিনব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের বিজয় উৎসবের বর্ণাঢ্য আয়োজনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় উৎসব উদ্বোধন করবেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দিন। এছাড়া প্রতিদিন বিকেলে ঢাকা ও চট্টগ্রামের রাজনৈতিক, শিক্ষাবিদ, সাংস্কৃতি ব্যক্তিত্ব এবং বরণ্য মুক্তিযোদ্ধাগণ মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখবেন এবং বেতার, টেলিভিশন ও নব প্রজন্মের শিল্পীবৃন্দের পরিবেশনায় সঙ্গীতানুষ্ঠান ও উদ্দাীপনামূলক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।