নতুন প্রজন্মকে সকীর্ণতা মুক্ত রাজনীতির দীক্ষায় দীক্ষিত হতে হবে

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৩০ অক্টোবর , ২০১৪ সময় ১১:১৩ অপরাহ্ণ

আমির হোসেন স্মরণ সভায় ড. অনুপম সেন

নতুন প্রজন্মকে সকীর্ণতা মুক্ত রাজনীতির দীক্ষায় দীক্ষিত হতে হবেচট্টগ্রাম শহর আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি চট্টগ্রামের মানব সম্পদ জননেতা আমির হোসেন দোভাষ স্মরণ সভায় প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন বলেন, প্রয়াত এই মহান নেতা আমাদেরকে সংকীর্ণতা মুক্ত রাজনীতি শিক্ষা দিয়ে যাবেন, কেননা আজো এই সংকীর্ণতা বৃহত্তর রাজনৈতিক ঐক্যে বাঁধা সৃষ্টিকারী। তিনি মনে করিয়ে দেন, আমির হোসেন দোভাষ স্বাধীনতার স্বাদ আস্বাদন করতে পারেন নি এক সত্য। কিন্তু ত্যাগ, তিতিক্ষা, এবক সাগর রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বাংলাদেশের স্বাধীনতার বীজ বপণকারী যে কয়জন মহামানব আমাদের স্মরণীয়, বরণীয় তাদের একজন এই আমির হোসেন দোভাষ। এই প্রসঙ্গে তিনি বিপ্লবী মাষ্টার দা সূর্যসেন, প্রীতিলতা, মনিরুজ্জামান ইসলামাবাদী ও মওলানা ভাসানীর জীবনী তরুণ প্রজন্মকে পড়ার আহ্বান জানান।
সভাপতির ভাষণে আলহাজ্ব এ.বি.এম. মহিউদ্দিন চৌধুরী বলেন, মরহুম আমির হোসেন দোভাষ আমাদের অস্তিত্বের শিকড়। তাঁর জীবন আওয়ামী রাজনীতির আলোক শিখা, এই আলোকে পরিশুদ্ধ হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনা জাতির কল্যাণে যে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন তা বাস্তবায়নে আমির হোসেন দোভাষ, জানে আলম, এম.এ আজিজ, এম.এ মান্নান, কাজী ইনামুল হক দানুর জীবনাদর্শ প্রেরণা হয়ে থাকবে। আমরা তাদের পথ ধরে এগিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করে একটি আধুনিক বাংলাদেশ বিনির্মাণে সম্মিলিত প্রচেষ্টা চালাবো।
চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আ.জ.ম নাছির উদ্দিন বলেন, আমাদরে চলার পথে মরহুম আমির হোসেন দোভাষ, এম.এ আজিজ জীবনাদর্শ, তাঁদের উত্তরাধিকার হিসেবে আমাদেরকে সুস্থ, পরিশুদ্ধ রাজনীতি চর্চা করতে হবে। একটি কঠিন সময় অতিক্রমের মধ্যদিয়ে আমির হোসেন দোভাষের মত নেতৃত্ব সাথে নিয়ে বঙ্গবন্ধু একটি দেশ স্বাধীন করেছিলেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা নেতৃত্বাধীন সরকারের পরিচালনায় রূপকল্প বাংলাদেশ বিনির্মাণে এই মহামানব নেতৃত্বের জীবনাদর্শ আমাদের পাথেয় হিসেবে গ্রহণ করতে হবে।
চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক শফিক আদনানের সঞ্চালনায় স্মরণ সভায় অন্যান্যর মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সহ-সভাপতি এড. সুনীল কুমার সরকার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব বদিউল আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, আইন সম্পাদক এড. শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, মরহুমের সন্তান আওয়ামলীগ নেতা আলহাজ্ব নবী হোসেন দোভাষ, মরহুমের দৌহিত্র ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম বাহাদুর, থানা আওয়ামীলীগের আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর চৌধুরী সিইনসি, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সলিমুল্লাহ বাচ্চু, মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান আহমেদ ইমু, সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি।
স্মরণ সভায় কবিতা আবৃত্তি করেন মহানগর মহিলা যুবলীগের আহ্বায়িকা অধ্যাপিকা সায়রা বানু রশ্মি। উপস্থিত ছিলেন, মহানগর আওয়ামীলীগের সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য শফিকুল ইসলাম ফারুক, মসিউর রহমান চৌধুরী, আব্দুল আহাদ, ডা: ফয়সাল ইকবাল চৌধুরী, শহীদুল আলম, এম.এ.জাফর, আবুল মনসুর, বখতেয়ার উদ্দিন খান, শেখ শহীদুল আনোয়ার, অমল মিত্র, আবদুল লতিফ টিপু, জাফর আলম চৌধুরী, গৌরাঙ্গ চন্দ্র ঘোষ, কাউন্সিলর বিজয় কিষান চৌধুরী, থানা আওয়ামীলীগের আলহাজ্ব ফিরোজ আহমেদ, ছিদ্দিক আলম, কাজী আলতাফ হোসেন প্রমুখ। সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলায়াত করেন অধ্যাপক মাসুম চৌধুরী।