নগর আ’লীগের সমাবেশ

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৮ ফেব্রুয়ারি , ২০১৮ সময় ০৯:০০ অপরাহ্ণ

দুর্নীতির মামলায় বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দেওয়া রায় শুনে সমাবেশ করেছে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ।  এই রায় বাংলাদেশে আইনের শাসনের জন্য এক ঐতিহাসিক মাইলফলক বলে মন্তব্য করেছেন নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন।

বিদেশ থেকে জিয়া এতিমখানা ট্রাস্টের নামে আসা দুই কোটি ১০ লাখ টাকা আত্মসাতের মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।  বৃহস্পতিবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) এই রায় ঘোষিত হয়েছে।

রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে বিএনপি নেতাকর্মীদের নাশকতা ঠেকাতে সকাল থেকেই বন্দরনগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান নেয় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

দুপুরে রায় ঘোষণার পর নগরীর দারুল ফজল মার্কেট চত্বরে নগর আওয়ামী লীগের তাৎক্ষণিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়, যাকে স্বত:স্ফূর্ত স্বস্তি সমাবেশ বলে উল্লেখ করেছে সংগঠনটি।

সমাবেশে আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর আদর্শিক ও নৈতিক অবস্থান বাংলাদেশের ভাবমূর্তিকে বিশ্বে উজ্জ্বল করবে।  আইনের শাসনের কোন বিকল্প নেই। কেউই আইনের ঊর্ধ্বে নয়।

তিনি বলেন, সর্বস্তরের গণমানুষকে সঙ্গে নিয়ে রাজপথে থেকে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ আজ ইতিহাস রচনা করেছে।  আমাদের আগামী নির্বাচন পর্যন্ত রাজপথে থাকতে হবে।

একই সমাবেশে নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, এই ঐতিহাসিক রায়ের মধ্য দিয়ে জনতার জয় হয়েছে। বিএনপি-জামায়াতের শাসনামলে হাওয়া ভবন দুর্নীতির আখড়া ছিলো। এই আখড়ার মাধ্যমে হাজার হাজার কোটি টাকার দুর্নীতি হয়েছে এবং তারেক জিয়া বিদেশে হাজার কোটি টাকা মানি লন্ডারিং করেছে।

নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল বলেন, খালেদা জিয়া আদালতের রায়ে কারাগারে গেছেন-এটাই সত্য। তিনি হাইকোর্টে যেতে পারেন।  এরপর রয়েছে আপিল বিভাগ। এতেই তার ভাগ্য নির্ধারিত হবে।  কিন্তু বিচারিক রায়ের বিরুদ্ধে আন্দোলন-লড়াই করে তিনি রক্ষা পাবেন না।

সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট সুনীল কুমার সরকার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম এ রশিদ, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিক আদনান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শফিকুল ইসলাম

ফারুক, দপ্তর সম্পাদক হাসান মাহমুদ শমসের, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক চন্দন ধর, বন ও পরিবেশ সম্পাদক মশিউর রহমান চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক দেবাশীষ গুহ বুলবুল, উপ প্রচার শহীদুল আলম, নির্বাহী সদস্য এম এ জাফর, আবুল মনসুর ও গৌরাঙ্গ চন্দ্র ঘোষ এবং বিভিন্ন ওয়ার্ড কমিটির জহির আহমদ চৌধুরী, সালাহউদ্দিন ইবনে আহমেদ, আবছার উদ্দিন চৌধুরী, ফজলে আজিজ বাবুল, আশফাক আহমেদ, আবদুর রহমান, শের মোহাম্মদ ও কাউন্সিলর সলিম উল্ল্যাহ বাচ্চু।


আরোও সংবাদ