ধান ক্ষেত অনিষ্টকারী পোক দমনে পার্সিং পদ্ধতির ব্যবহার

প্রকাশ:| বুধবার, ১ অক্টোবর , ২০১৪ সময় ১১:২৯ অপরাহ্ণ

ফুলবাড়ী উপজেলায় আমন ধান ক্ষেত অনিষ্টকারী পোক দমনে পার্সিং পদ্ধতির ব্যবহার এবং আলোক ফাঁদে উপকার পাচ্ছেন চাষীরা।

আমন ধান ক্ষেতে কীটপতঙ্গের আক্রমণ এবং ফসলের বিভিন্ন রোগে চাষীরা কীটনাশকের উপর নির্ভরশীল হয়ে পড়ছিলেন। এতে উৎপাদন কমার পাশাপাশি উপকারী কীটপতঙ্গ বিনষ্ট ও ফসলের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমতে বসেছে।
ধান ক্ষেত অনিষ্টকারী পোক দমনে পার্সিং পদ্ধতির ব্যবহার
এমন সময় উপজেলা প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে ফসলের রোগবালাই দমন এবং অনিষ্টকারী পোকার আক্রমণ ঠেকাতে জৈবিক দমন প্রক্রিয়ায় পার্সিং পদ্ধতি ব্যবহার এবং আলোক ফাঁদ পদ্ধতি আমন ক্ষেতে পোকামাকড় দমনে আশানুরুপ ফল মিলছে বলে উপজেলা কৃষি দপ্তর দাবি করেছে।

প্রতিটি ধান ক্ষেতে গাছের ডাল কিংবা বা কোনো আগাছা পুঁতে দিয়ে পাখি বসার ব্যবস্থা করার পদ্ধতি হচ্ছে পার্সিং পদ্ধতি যা প্রাচীনকাল থেকে চাষীরা ব্যবহার করে আসছেন।

আলোক ফাঁদ হচ্ছে- রাতের আঁধারে ক্ষেতের মধ্যে আলো জ্বালিয়ে পোকামাকড় দমন করা।

ফুলবাড়ী উপজেলায় পার্সিং পদ্ধতি প্রয়োগ করে ৯৭% সফলতা পাওয়া গছে বলে ফুলবাড়ী উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকতা এস এম নাসিম হেসেন জানান।

এ ব্যাপারে বাংলামেইলকে তিনি বলেন, ‘আলোক ফাঁদ প্রক্রিয়ায় একটি ক্ষেত ও এর আশেপাশের এলাকায় পোকামাকড়ের পরিস্থিতি এবং উপস্থিতি নির্ণয় করা সম্ভব হয়।’

এস এম নাসিম হেসেন বলেন, ‘ফুলবাড়ী উপজেলায় প্রতিটি ব্লকে পাঁচটি করে মোট ১৬টি ব্লকে ৮০টি আলোক ফাঁদ কার্যক্রম চালানো হয়েছে। চলতি মৌসুমে ফুলবাড়ী উপজেলায় ১৭ হাজার ৬শ’ হেক্টর জমিতে আমন চাষ করা হয়েছে।’


আরোও সংবাদ