ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার জেরে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট

প্রকাশ:| বুধবার, ৫ আগস্ট , ২০১৫ সময় ১১:১০ অপরাহ্ণ

ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার জের ধরে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট। কক্সবাজারে আটোরিকশা শ্রমিকদের দুই গ্রুপের অভ্যন্তরীণ বিরোধের জের ধরে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার জের ধরে দক্ষিণ চট্টগ্রামে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন। ফলে বুধবার সন্ধ্যা থেকে একাংশ নিয়ন্ত্রিত পরিহরণ কক্সবাজার থেকে ঢাকা, চট্টগ্রামসহ দূরপাল্লা ও অভ্যন্তরীণ রুটে যাত্রী পরিবহন বন্ধ করে দিয়েছে।

আটোরিকশা শ্রমিকদের একপক্ষের দাবি তাদের উপর হামলা করে সংগঠনের কার্যালয় দখল করা হয়েছে। কিন্তু অপরপক্ষ বলছে, তারা বৈধ কমিটি। কার্যালয়ে সভা-সমাবেশ করেছে। এ সময় তাদের ওপর হামলা করে অবৈধ কমিটির নেতারা।

অন্যদিকে পুলিশ বলছে, ওখানে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষ ও হামলার বিষয়টি জানা নেই।

আর আটোরিকশা শ্রমিকদের দুই গ্রুপের আভ্যন্তরীণ বিরোধের জের ধরে ঘোষিত ধর্মঘট মানতে রাজি নন কক্সবাজার জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন। সংগঠনটির নেতারা বলছেন, ঘোষিত ধর্মঘটটি কক্সবাজার জেলাবাসীকে জিম্মি করার প্রক্রিয়ার অংশ।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন কক্সবাজার শাখার সভাপতি আবুল কালাম আবু জানান, কক্সবাজার আটোরিকশা-টেম্পু চালক শ্রমিক ইউনিয়ন সংগঠনটি তাদের ফেডারেশনভুক্ত। কক্সবাজার শহরের বাজারঘাটায় অবস্থিত সংগঠনটির কার্যালয় বুধবার বিকালে একদল সন্ত্রাসী দখল করে নিয়েছে। এ সময় হামলায় আহত হয়েছে সংগঠনটির সভাপতি মোহাম্মদ ছিদ্দিকসহ ৩ জন। তারা বর্তমানে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। ঘটনাটি কেন্দ্রীয় নেতাদের অবহিত করার পর নেতাদের পরার্মশক্রমে দক্ষিণ চট্টগ্রামে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন। ফলে বুধবার সন্ধ্যা থেকে কক্সবাজারসহ দক্ষিণ চট্টগ্রামে বাস, ট্রাক, মাইক্রোবাসসহ অন্যান্য যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

কক্সবাজার আটোরিকশা-টেম্পু চালক শ্রমিক ইউনিয়নের একাংশের আহবায়ক জিন্নাত আলী জানান, ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালনে কমিটির পক্ষে বুধবার বিকেলে সংগঠনের কার্যালয়ে এক প্রস্তুতি সভা করা হয়। ওই সময় অবৈধ কমিটির কয়েকজন নেতার নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা সমাবেশে হামলা করে। এখন উল্টো ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে প্রচেষ্টা চালাচ্ছে।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানান, কক্সবাজার আটোরিকশা-টেম্পু চালক শ্রমিক ইউনিয়নের শ্রমিকদের আভ্যন্তরীণ বিরোধের জের ধরে একটি পক্ষ আলাদা কমিটি ঘোষণা করে। ওই নতুন ঘোষিত কমিটিটি সংগঠনের কার্যালয়ে সভা-সমাবেশ করার জের ধরে দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। ওখানে হামলা হয়েছে বলে পুলিশের জানা নেই। তবে কেউ লিখিত অভিযোগ দিলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কক্সবাজার জেলা সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি খোরশেদ আলম শামীম জানান, কক্সবাজার আটোরিকশা-টেম্পু চালক শ্রমিক ইউনিয়নের দুই গ্রুপের দ্বন্দ্বের জের ধরে এ ধর্মঘটের ডাক দেয়া হয়। অভ্যন্তরীণ কারণে এ ঘটনা মিমাংসা না করে হঠাৎ করে ধর্মঘটের ঘোষণা দেয়া কক্সবাজার জেলাবাসী ও আগত পর্যটকদের জিম্মি করার প্রক্রিয়ার অংশ। কক্সবাজার জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের আওতাভুক্ত পরিবহন ঢাকা-চট্টগ্রামে যাত্রী পরিবহন করছে।