ধর্মের নামে মানুষে-মানুষে বিভাজন হতে পারে না

প্রকাশ:| বুধবার, ২১ অক্টোবর , ২০১৫ সময় ১০:০৩ অপরাহ্ণ

মহিউদচট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব এ.বি.এম. মহিউদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, আমরা এমন একটি গর্বিত জাতি যেখানে সাম্প্রদায়িকতার কোন স্থান নেই। তবে ধর্মকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে অধর্মের কাজও হচ্ছে।

এদের বিরুদ্ধে অবশ্যই রুখে দাঁড়াতে হবে। তিনি আরো বলেন, আমরা প্রথমত মানুষ পরে যার যার ধর্ম পরিচয়ে মুসলমান-হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান। তবে আমাদের মূল শক্তি বাঙালি জাতিসত্তা। ধর্ম পরিচয়ে আমরা কেউ হিন্দু, মুসলমান, বৌদ্ধ বা খ্রীষ্টান কিন্তু আমরা সবাই বাঙালি জাতিসত্তার অংশীদার।

তাই ধর্ম যার যার উৎসব সবার। তিনি আজ সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসবের মহাঅষ্টমী তিথিতে বিভিন্ন শারদীয় পূজামন্ডপ পরিদর্শনকালে একথা বলেন। তিনি আরো বলেন, ধর্মের নামে কোন বিভাজন হতে পারে না এটাই আমাদের মুক্তিযুদ্ধের শিক্ষা। মুক্তিযুদ্ধে সকল ধর্মের মানুষ আত্মত্যাগের মাধ্যমে বাঙালি জাতিসত্ত্বার বিজয় ছিঁনিয়ে এনেছে। তিনি আশা প্রকাশ করেন মানুষে-মানুষে মিলনের ধর্মের যে মর্ম বাণী তা সমাজে অবশ্যই প্রতিষ্ঠিত হবে।

কোতোয়ালী থানাধীন নাথপাড়া সহ বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শনকালে উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন। এই সময় তাঁর সাথে ছিলেন মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন খোকা, আহব্বায়ক কমিটির সদস্য আকবর হোসেন, আবদুর রহিম, মো: আকবর হোসেন, শাখাওয়াত হোসেন স্বপন, নুরুল আনোয়ার, সাফায়েত হোসেন খোকা, দেবাশীষ নাথ দেবু, ননী গোপাল নাথ, বাবুল দে, লিটন দে, প্রিয়লাল, আবুল বশর, সজল দে, শোকুল দে, রাজু দে, দোলন বৈষ্ণব, সুজন দে, রতন দে, মিঠুন দে, ইমন দে, অমিত দে, সৌরভ দত্ত প্রমুখ।


আরোও সংবাদ