ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে শবে-বরাত পালিত

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১ মে , ২০১৮ সময় ১১:৪৪ অপরাহ্ণ

নিউজচিটাগাং:: যথাযোগ্য ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পালিত ইসমলাম ধর্মের সৌভাগ্যের রজনী খ্যাত পবিত্র শবে-বরাত। বাংলাদেশসহ সারাবিশ্বের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা মহান আল্লাহর রহমত ও নৈকট্য লাভের আশায় নফল নামাজ আদায়, কোরআন তেলাওয়াত, জিকির, ওয়াজ ও মিলাদ মাহফিলসহ এবাদত-বন্দেগীর মধ্য দিয়ে এই রাতটি অতিবাহিত করছেন। মহিমান্বিত এ রজনীতে মুসলিম উম্মাহর সুখ, শান্তি আর সমৃদ্ধি কামনা করে বিশ্বের মুসলমানগণ বিশেষ মোনাজাত ও দোয়া করেছেন।
সৌভাগ্যের এ চট্টগ্রামসহ সারাদেশে নারী-পুরুষ-শিশু-বৃদ্ধসহ সর্বস্তরের মুসলমানরা কোরআন তেলাওয়াত, নফল নামাজ ও বিশেষ মোনাজাতের মধ্য দিয়ে মহান সৃষ্টিকর্তা আল্লাহতায়ালার সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য এবাদত-বন্দেগিতে মশগুল ছিলেন। এ উপলক্ষে ধর্মপ্রাণ নারী-পুরুষরা আজ নফল রোজাও পালন করেছেন।

বাসাবাড়ি ছাড়াও মসজিদে মসজিদে রাতভর চলছে নফল নামাজ, পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত, ওয়াজ মাহফিল, অন্যান্য এবাদত-বন্দেগি ও মোনাজাত। মুসলমানদের বিশ্বাস, মহিমান্বিত এ রাতেই মহান আল্লাহতায়ালা মানুষের ভাগ্য অর্থাৎ তার নতুন বছরের ‘রিজিক’ নির্ধারণ করে থাকেন।

রাতভর এবাদত, বন্দেগি, জিকির ছাড়াও পবিত্র এ রাতে মুসলমানরা মৃত বাবা-মা ও আত্মীয়-স্বজনসহ প্রিয়জনদের কবর জিয়ারত করেন। তাই এ রাতে কবরস্থানগুলোতে মুসল্লিদের উপচেপড়া ভিড় দেখা যায়। মহিমান্বিত এ রজনী ভাবগম্ভীর পরিবেশের মধ্য দিয়ে পালনের লক্ষ্যে জমিয়তুল ফালাহ মসজিদ, আন্দকিল্লাহ মসজিদ, সুগন্ধা মসজিদ, সিডিএ মসজিদ, মেহেদিবাগ মসজিদ, কাতাল গন্জ মসজিদ, নগরীর লালদীঘি মসজিদ, ওয়ালী খা মসজিদ, চন্দনপুরা মসজিদ,  শাহসুফি হজরত আমানত খান শাহের (র.) দরগা মসজিদ, হজরত বদর শাহ (র.), হজরত মিসকিন শাহ (র.), হজরত বায়েজিদ বোস্তামী (র.), হজরত গরিবুল্লাহ শাহ (র.), হজরত বদনা শাহ (র.), হালিশহরের হাফেজ মুনির উদ্দিন (র.). ফটিকছড়ির মাইজভাণ্ডার শরিফ, আনোয়ারার মোহসেন আউলিয়ার দরগাসহ আউলিয়াদের মাজার ও খানকাগুলো সহ সকল মসজিদে মঙ্গলবার দিনগত রাতে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল।

অনুষ্ঠানমালার মধ্যে রয়েছে ওয়াজ-মাহফিল, কোরআন তেলাওয়াত, মিলাদ মাহফিল, হামদ্, না’ত, নফল ও তাহাজ্জুদের নামাজ এবং আখেরী মোনাজাত।

পবিত্র এ রাতে ধর্মপ্রাণ মুসুল্লিদের এবাদত-বন্দেগির জন্য নগরীর সব মসজিদ সারারাত খোলা ছিল। এশার নামাজে মসজিদগুলোতে মুসল্লির ঢল লক্ষ করা গেছে। বৃদ্ধ-যুবকদের পাশাপাশি বাবা-চাচার হাত ধরে বিপুলসংখ্যক শিশু-কিশোরও মসজিদে এসেছে। অনেকে মসজিদে অবস্থান করে ইবাদত বন্দেগি করছেন। আবার অনেকে প্রিয় জনের কাছে গিয়ে তাদের সাথে নিয়ে বাসায় আল্লাহর দরবারে ফরিয়াদ করেছেন।

এ রাতের বিশেষ অনুষঙ্গ কবর জিয়ারতের পাশাপাশি মুসল্লিদের ব্যাপক উপস্থিতিতে মসজিদে মসজিদে এশার নামাজের পর থেকেই দফায় দফায় ওয়াজ মাহফিল, জিকির ও মিলাদ মাহফিলের মাধ্যমে বাদ ফজর দেশ, জাতি ও মুসলিম উম্মাহর জন্য আল্লাহর রহমত কামনায় মোনাজাতের মধ্য দিয়ে পবিত্র লাইলাতুল বরাতের সমাপ্তি হয়।

বাংলাদেশ টেলিভিশন, বাংলাদেশ বেতারসহ বিভিন্ন বেসরকারি টিভি চ্যানেল ও রেডিও এ উপলক্ষে ধর্মীয় নানা অনুষ্ঠান সম্প্রচার করছে।
দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরে চট্টগ্রামের ডিজিটাল পত্রিকা “নিউজচিটাগাং২৪” ও জাতীয় দৈনিকগুলো বিশেষ নিবন্ধ প্রকাশ করেছে।

পবিত্র শবেবরাত উপলক্ষে বুধবার সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।