‘দৈনিক সংগ্রাম’ ভবনে সন্ত্রাসী হামলা

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ২ জুলাই , ২০১৫ সময় ১১:৪৭ অপরাহ্ণ

রাজধানীর আরামবাগে দৈনিক সংগ্রামের ভবনে হামলা চালিয়েছে সন্ত্রাসীরা। গত ২৫ জুন রাত সাড়ে ৮ টার দিকে ১০-১২ জন দৃর্বৃত্ত স্থানীয় কাউন্সিলরের লোক পরিচয় দিয়ে বিপিএল ভবনে আসে। এ সময় তারা সকল ভাড়াটিয়াদের ৩০ জুনের মধ্যে রুম খালি করে দেয়ার হুমকি দেয়। এছাড়াও মারধর করেছে বিপিএল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের। এ নিয়ে অফিসের ভাড়াটিয়ারা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে।

দৈনিক সংগ্রাম ভাবনের প্রশাসনিক কর্মকতা মোঃ নুরউদ্দিন লিখিতভাবে গণমাধ্যমকে এসব তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, গত বুধবার দুপুরের ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৯নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো: মমিনুল হক সাঈদের পরিচয়ে ১০-১২ জনের একদল দুর্বৃত্ত বিপিএল ভবন ৮৯, ৮৯/১ আরামবাগ এর ২য় তলায় কোম্পানির অফিস কক্ষে কমান্ডো স্টাইলে প্রবেশ করে। তারা এসেই বলে ‘অফিসের কর্মচারী কে কে আছো আমাদের সঙ্গে কমিশনার কার্যালয়ে চলো’।

তারা অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মারধর করে ৩ জন অফিস স্টাফকে জোরপূর্বক কাউন্সিলরের কার্যালয়ে নিয়ে যায়। সেই সময় কাউন্সিলর মো: মমিনুল হক সাঈদ সেখানে উপস্থিত ছিলেন। তার নির্দেশে এর কিছুক্ষণ পর কাউন্সিলরের লোকজন তার পিএস এর নেতৃত্বে বিপিএল ভবনে এসে ৫টি রুমে তালা লাগিয়ে দেয়। এ সময় তারা আবারও ভাড়াটিয়াদের হুমকি-ধামকি দেয় এবং ৭ তারিখ থেকে সকল ভাড়া কাউন্সিলরের কার্যালয়ে পৌঁছে দিতে বলে যায়। ২/১ জন ভাড়াটিয়া প্রতিবাদ করলে তাদেরকে চর-থাপ্পর ও কিল-ঘুষি দেয় সন্ত্রাসীরা। তারা ভাড়াটিয়াদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। পরে একজন অফিস স্টাফকে ছেড়ে দিলেও এবং অন্য ২জনকে কাউন্সিলরের কার্যালয়ে আটকে রাখে। এ সময় ২ জনকে ব্যাপক মারধর করা হয়।

এরপর ওইদন বিকেল সাড়ে ৩ টায় কাউন্সিলর আবারও তার লোকজনকে পিএস এর নেতৃত্বে বিপিএল অফিসে পাঠায়। তারা সমস্ত ফাইলপত্র তছনছ ও ঘাটাঘাটি করে দলিল, খাজনা খারিজের পর্চা, নামজারী, সিটি করপোরেশন ট্যাক্সের কাগজপত্রের ফাইল, ভাড়া রেজিস্ট্রার, ব্যাংক লেজার, ভাড়াটিয়াদের তালিকা, গ্যাস বিদ্যুৎ বিল রেজিস্ট্রার ও বিলের কপি এবং বিপিএল ভবনের মূল্যবান নথিপত্র নিয়ে প্রত্যেক রুমের চাবি নিজেরাই তালা লাগিয়ে দেয় এবং অফিসের স্টাফ ২ জনকে ছেড়ে দেয়।

এ নিয়ে অফিসের ভাড়াটিয়ারা চরম আতঙ্কের মধ্যে রয়েছে। তারা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। এ ব্যাপারে গতকাল বুধবার ও আজ বৃহস্পতিবার মতিঝিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে বিষয়টি লিখিতভাবে অবহিত করা হয়েছে।

এ বিষয়ে মতিঝিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জি এম ফরমান আলী গণমাধ্যমকে জানান, বিষয়টি নিয়ে একজন এসেছিল আমার কাছে। আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখবো।