‘‘দেহে প্রাণ থাকতে বাঘাইছড়িকে খাগড়াছড়ি হতে দেব না’’

প্রকাশ:| রবিবার, ২০ ডিসেম্বর , ২০১৫ সময় ০৮:০৮ অপরাহ্ণ

বাঘাইছড়িপ্রাণ দেবে তবুও বাঘাইছড়িকে খাগড়াছড়ির হতে দেবে না বাঘাইছড়ির মানুষ। তাই ঘর-বাড়ি-দোকানপাট বন্ধ করে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ, মানবন্ধন ও সমাবেশ করেছে তারা।

রোববার সকালে পাহাড়ি-বাঙালী এক সঙ্গে মিলে প্রতিবাদী মিছিল, ব্যানার, ফেস্টুন নিয়ে হাজির হয় বাঘাইছড়ি উপজেলা পরিষদ মাঠে। স্কুল ছেড়ে বই খাতা নিয়ে রাস্তায় চলে আসে শিক্ষার্থীরা। তাদের একটিই দাবি বাঘাইছড়ি উপজেলাকে তারা খাগড়াছড়ি জেলার সঙ্গে স্থানান্তর হতে দিবে না। সকাল সাড়ে ১০টায় শুরু হয় এ প্রতিবাদ সমাবেশ।

প্রাণ দেব তবুও বাঘাইছড়িকে খাগড়াছড়ির হতে দেব নাএ সময় বক্তারা বলেন, রাঙামাটি জেলার সঙ্গে বাঘাইছড়ি মানুষের আত্মার সম্পর্ক রয়েছে। কিন্তু একটি মহল শুধু তাদের স্বার্থকে উদ্ধার করার জন্য সড়ক যোগাযোগের মাধ্যমকে অজুহাত হিসেবে দেখিয়ে বাঘাইছড়িকে খাগড়াছড়ির সঙ্গে যুক্ত করার জন্য ষড়যন্ত্র করছে।

বাঘাইছড়ি পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি জমির উদ্দিন বলেন, বাঘাইছড়ি উপজেলার মানুষের অধিকার খর্ব করা হবে তা হতে দেয়া যাবে না। বাঘাইছড়িকে খাগড়াছড়ির সঙ্গে যুক্ত করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হলে তা প্রতিহত করতে যা যা করণীয় বাঘাইছড়ির মানুষ তা করবে। প্রয়োজন আরো কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। উপজেলার মানুষ প্রাণ দিয়ে হলেও এই স্থানান্তর ষড়যন্ত্র ঠেকাবে। বাঘাইছড়িকে খাগড়াছড়ি জেলার সঙ্গে যুক্ত করার প্রস্তাবনা দেয়ার প্রতিবাদে ৯ জানুয়ারি সমগ্র বাঘাইছড়ি উপজেলায় ছাত্র ধর্মঘটের ঘোষণা দেন জমির উদ্দিন।

প্রাণ দেব তবুও বাঘাইছড়িকে খাগড়াছড়ির হতে দেব নাবাঘাইছড়ি প্রেস ক্লাব সভাপতি দিলীপ কুমার দাশ বলেন, রাঙামাটির সঙ্গে বাঘাইছড়ি মানুষের আত্মার সম্পর্ক রয়েছে। শুধুমাত্র সড়ক যোগাযোগের অজুহাতে বাঘাইছড়িকে খাগড়াছড়িতে স্থানান্তর করা হবে এটি কোন যুক্তি হতে পারে না। সরকার বাঘাইছড়ি উন্নয়নে এত যদি আন্তরিক হয় তাহলে উপজেলা থেকে জেলা পরিণত করা হোক তাতে বাঘাইছড়িবাসীর কোন আপত্তি থাকবে না।

সভাপতি বক্তব্যের উপজেলা চেয়ারম্যান বড়ঋষি চাকমা বলেন, বাঘাইছড়ি মানুষের অধিকার নিয়ে ছিনিমিনি খেলা চলবে না। বাঘাইছড়ি মানুষকে চতুর্থ শ্রেণীর মানুষের পরিণত করতে এই ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। দীর্ঘদিন ধরে একটি মহল কতিপয় মানুষের স্বার্থকে প্রাধান্য দিতে বাঘাইছড়ির ইতিহাস ঐতিহ্য ধ্বংস করার অপচেষ্টায় লিপ্ত আছে। জনগণের বিরোধিতার মুখে যদি কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হয় তাহলে এর পরিণাম ভাল হবে না।

প্রাণ দেব তবুও বাঘাইছড়িকে খাগড়াছড়ির হতে দেব নাসমাবেশ শেষে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেয়া হয়। সমাবেশে স্মারকলিপি পড়ে শোনান বাঘাইছড়ি মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সুমিতা চাকমা।
সমাবেশে আরো বক্তব্য দেন, পৌর মেয়র মো. আলমগীর কবির, বাঘাইছড়ি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান আজিজ, বাঘাইছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান অলিভ চাকমা, বাঘাইছড়ি কাঠ ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন মামুন, কাচালং ডিগ্রী কলেজের উপাধ্যক্ষ দেব প্রসাদ চাকমা, বাঘাইছড়ি প্রেস ক্লাব সভাপতি, বাঘাইছড়ি পৌর কাউন্সিলর আব্দুল মান্নান, জেএসএস বাঘাইছড়ি সভাপতি কাকলী চাকমা, উপজেলা ছাত্রদল সভাপতি নজরুল ইসলাম, হেডম্যান বিশ্বজিৎ চাকমা, কাচালং বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান ভদ্রসেন চাকমা প্রমুখ।