‘‘দেশের স্বার্থে, দলের স্বার্থে ব্যক্তিস্বার্থের উর্ধে উঠুন’’

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৪ ফেব্রুয়ারি , ২০১৬ সময় ০৮:২১ অপরাহ্ণ

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

বাংলাদেশ যাতে স্বাধীন দেশ হিসেবে না থাকতে পারে সেজন্য আঘাত হানার চেষ্টা চলছে বলে মন্তব্য করেছেন আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক। সেই ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করতে ঐকবদ্ধ থাকার জন্য সরকারি আইন কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন মন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় সার্কিট হাউজে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সরকারি আইন কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী আরও বলেন, আমরা যারা বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাস করি, আমরা যারা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এই বাংলাদেশের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি, আমরা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি। গণতন্ত্র মানে শুধু একটা সাধারণ নির্বাচন নয়। সব নির্বাচনেই ভোটাধিকারের মাধ্যমে প্রতিনিধি নির্বাচনের মানেই হচ্ছে গণতন্ত্র।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের বিরুদ্ধে, শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র সবসময় চলছে। সবসময় আমাদের একটা চ্যালেঞ্জের মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে।

‘আমাদের যারা প্রতিপক্ষ, আমি শত্রু বলা থেকে বিরত থাকলাম, তারা কিন্তু সবসময় আমাদের মূলে ‍আঘাত করে। ১৯৭১ সালে করেছে, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট করেছে। এরপর ২১ বছর ধরে আঘাত করেছে, যখনই সুযোগ পেয়েছে তখনই আঘাত করেছে। ভবিষ্যতেও কিন্তু তারা আঘাত করার চেষ্টা করবে যাতে বাংলাদেশ একটা স্বাধীন দেশ না থাকতে পারে। ’ বলেন মন্ত্রী।

আইন কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ যদি স্বাধীন দেশ না থাকতে পারে তাহলে আপনারাও কিন্তু চট্টগ্রামে সরকারের আইন কর্মকর্তা থাকতে পারবেন না। এটা পরিস্কার কথা। সুতরাং আমাদের সেই ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করতে হবে।

১০ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন নিয়েও কথা বলেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, চট্টগ্রাম বারের যে নির্বাচন হবে, আমার কাছে সবাইকে ওয়াদা করতে হবে ১৯ জনের মধ্যে ১৯ জনকেই নির্বাচিত করতে হবে। এবার আমি ১৯ জন চাই।

তিনি দলীয় আইনজীবীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা যখন যা চেয়েছেন তা-ই পেয়েছেন। আমি কিন্তু কাউকে একবারও পিপি করা নিয়ে কোন প্রশ্ন করিনাই। আপনারা যা চেয়েছেন তাই পেয়েছেন। এবার আমার চাওয়ার পালা। বিনীতভাবে চাইব, আপনারা ১৯ জনকে জয়ী করে আমাকে দেন।

‘এই মুহুর্ত থেকে কাজে লেগে যান। ব্যক্তিগত পছন্দ থাকতে পারে, অপছন্দও থাকতে পারে। কিন্তু দেশের স্বার্থে, দলের স্বার্থে ব্যক্তিস্বার্থের উর্ধে উঠুন। ’ বলেন মন্ত্রী।

একই অনুষ্ঠানে ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ বলেন, আইনজীবী সমিতির নির্বাচন আমরা নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করব। আমরা নির্বাচনে পুরো প্যানেলকে বিজয়ী দেখতে চাই। সমস্ত চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে পুরো প্যানেলকে বিজয়ী করতে হবে।

মতবিনিময় অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম মহানগর পিপি অ্যাডভোকেট ফখরুদ্দিন চৌধুরী, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট মুজিবুল হকসহ কয়েকজন জেষ্ঠ্য আইনজীবী বক্তব্য রাখেন।

এর আগে সার্কিট হাউজে জেলা লিগ্যাল এইড কমিটি আয়োজিত ‘সরকারি আইন সহায়তা কার্যক্রমের মানোন্নয়নে ডিজিটাল অগ্রযাত্রা’ শীর্ষক এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন আইনমন্ত্রী।

এসময় তিনি বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশে বিচারাধীন মামলার সংখ্যা ৩০ লাখ সাত হাজার ৮৬০টি। প্রতি বছর মামলা দায়েরের সংখ্যা নিষ্পত্তির চেয়ে অন্ত:ত কয়েক লক্ষ বেশি থাকে। আইনগত প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মামলা নিষ্পত্তি করতে কমপক্ষে ৩-৪ বছর সময় লেগে যায়। বাংলাদেশের প্রায় প্রতিটি আদালতে মামলার ভারে ন্যুজ। মামলাজটের কবল থেকে বিচার ব্যবস্থাকে মুক্ত করতে হলে বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তির (এডিআর) কোন বিকল্প নেই।

‘বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তিকে উৎসাহিত করে বেশ কিছু আইন পাশ করা হলেও জেলা পর্যায়ে এ বিষয়ে কাজ করার জন্য কোন অফিস না থাকায় জনগণ এসব আইনের সুফল পাচ্ছে না। মামলাজট নিরসনে জেলা লিগ্যাল এইড অফিসকে বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তির কেন্দ্রস্থল হিসেবে কাজে লাগাতে হবে। ’ বলেন মন্ত্রী।