‘দেশীয় উদ্ভাবন একদিন বিশ্বজয় করবে’

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ৯ আগস্ট , ২০১৬ সময় ১০:০৫ অপরাহ্ণ

দেশীয় প্রযুক্তি তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জনাব জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, আমাদের উদ্যোক্তাদের অনেক উদ্যোগ মাঝে মাঝে পর্যাপ্ত মেনটরশিপ, ব্রান্ডিং, প্রমোশনের অভাবে সঠিক গন্তব্য খুঁজে পায় না। আমরা সেসব উদ্যোগকে ট্রেড বডির সাথে একযোগে মিলে তাদেরকে মেন্টরশিপ, ব্রান্ডিং, প্রমোশনসহ সকল সহযোগিতার মাধ্যমে বৈশ্বক পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি স্থানীয় পর্যায়েও তাদের ব্যবসা সম্প্রসারণে সহযোগিতা করব। এজন্য আমরা একটি ইনোভেশন ইকো-সিস্টেম এবং স্টার্টআপ কালচার তৈরি করছি।

মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর আগারগাঁওস্থ আইসিটি ডিভিশনের বিসিসি অডিটোরিয়ামে ‘ওয়ান থাউজেন্ড ইনোভেশন বাই ২০২১’ কর্মকান্ডের প্রেস মিট ও চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে কি-নোট স্পিসে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমি বিশ্বাস করি ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ থেকেই বেশ কয়েকটি দেশীয় উদ্ভাবন সারাবিশ্বে সাড়া জাগাবে। তাদের মেধার সক্ষমতার প্রমাণ করবে। সে জন্য এসব কার্যক্রম বাস্তবায়নের জন্য আমরা ‘ওয়ান থাউজেন্ট ইনোভেশন বাই ২০২১’ কর্মযজ্ঞ শুরু করেছি। এসব কর্মকাণ্ড থেকেই আমাদের দেশীয় উদ্ভাবন একদিন বিশ্বমানের নতুন উদ্ভাবনী সেবার মাধ্যমে সারাবিশ্বে নেতৃত্ব দেবে। আমাদের দেশীয় উদ্ভাবন একদিন বিশ্বজয় করবে।
দেশীয় উদ্ভাবন একদিন বিশ্ব জয় করবে: পলক
এসময় ইলিনর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. তাহের এ সাইদের বায়ো-বট বা জীবন্ত রোবট, ড. মাকসুদুল আলমের নেতৃত্বে পাটের জীবন রহস্য উন্মোচন, কুয়েটের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীদের স্মার্টওয়াচ, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী তরুণ দেবনাথের অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোন নিয়ন্ত্রিত হুইল চেয়ার উদ্ভাবনের কথা উল্লেখ করে পলক বলেন, আমাদের কোনো উদ্ভাবন যেন বৃথা না যায়, সে জন্য আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপকার, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদের নেতৃত্বে আইসিটি ডিভিশন এসব উদ্যোগকে সহযোগিতা করবে।

পরে এই অনুষ্ঠানে ৯টি উদ্ভাবনী অ্যাপস ও গেমের বিভিন্ন অংকের মোট ৯০ লাখ টাকা অনুদান দেয়া হয়।

সারা দেশের তরুণ-তরুণীদের তথ্য প্রযুক্তিকেন্দ্রিক উদ্ভাবনী কাজে আগ্রহী করে তুলতে এবং এর মাধ্যমে সেরা উদ্ভাবনগুলোকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে পৌঁছে দিতে, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ ‘ওয়ান থাউজেন্ড ইনোভেশন বাই ২০২১’ নামক প্রজেক্ট বাস্তবায়ন করছে। এর মাধ্যমে ২০২১ সালের মধ্যে ১০০০ নতুন পণ্য বা সেবা উদ্ভাবনে সরকার ইনোভেশন ফান্ড থেকে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করছে।

বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক এস এম আশরাফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই প্রেস-মিট ও চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. হারুনুর রশিদ, অতিরিক্ত সচিব সুশান্ত কুমার সাহাসহ আইসিটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।