দেবোত্তর সম্পত্তি আইন বাতিলের দাবিতে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন

প্রকাশ:| রবিবার, ৮ সেপ্টেম্বর , ২০১৩ সময় ১১:২৭ অপরাহ্ণ

হিন্দুদেবোত্তর সম্পত্তি আইন বাতিলের দাবিতে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে দেবোত্তর সম্পত্তি রক্ষা ও পুনরুদ্ধার জাতীয় কমিটি চট্টগ্রাম বিভাগীয় শাখা। সমাবেশে দেবোত্তর সম্পত্তি আইন পাস করা থেকে বিরত থাকার জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানানো হয়।

গতকাল রবিবার সকালে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সনাতন ধর্মাবলম্বীরা ইষ্ট দেবের নামে সম্পত্তি দান করে উপাসনালয় নির্মাণ করেন। এই সম্পত্তিতে হস্তক্ষেপ করার জন্য সরকার দেবোত্তর সম্পত্তি আইন নামে একটি কালো আইন সংসদে পাস করতে যাচ্ছে যা সনাতনী সমপ্রদায়ের ধর্মীয় স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপের সামিল।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন শ্রীপাদ লীলারাজ গৌর দাস ব্রহ্মচারী। বক্তব্য রাখেন কমিটির চট্টগ্রাম বিভাগীয় প্রধান সমন্বয়ক সীতাকুণ্ড ও শংকর মঠ ও মিশনের অধ্যক্ষ শ্রীমত্ তপনানন্দ গিরি মহারাজ, তুলসী ধামের মোহান্ত মহারাজ শ্রীমত্ নারায়ণ পুরী, শ্রীশ্রী পুন্ডরীক ধামের অধ্যক্ষ শ্রীপাদ চিন্ময় কৃষ্ণ দাস ব্রহ্মচারী প্রমুখ।

যশোরে বিক্ষোভ মিছিল

যশোর অফিস জানায়, প্রস্তাবিত দেবোত্তর সম্পত্তি ব্যবস্থাপনা আইন বাতিলের দাবিতে যশোরে বিক্ষোভ মিছিল ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে। রবিবার দুপুরে যশোর জেলা মঠ মন্দির ও দেবোত্তর সম্পত্তি রক্ষা ও পুনরুদ্ধার কমিটি বিক্ষোভ মিছিল ও স্মারকলিপি প্রদান করে।

বিক্ষোভ মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন পূজা উদযাপন পরিষদ যশোর জেলা শাখার সভাপতি অসীম কুণ্ডু। স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে, এই আইনটি পাস হলে মঠ, মন্দির ও দেবোত্তর সম্পত্তির সেবায়েত, ব্র্রহ্মচারী, সন্ন্যাসী, সাধু, মহন্তদের অধিকার খর্ব হবে। পরিচালনা পর্ষদের কেন্দ্রীয় কমিটির ১৭ সদস্যের মধ্যে ১২ জন হবেন বিশিষ্ট হিন্দু নাগরিক। এই বিষয়টি নিয়ে হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা আতঙ্কিত। কারণ দেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও রাজনৈতিক পট পরিবর্তনের ফলে ১২ জনই হবে সরকার দলীয় মনোনীত।