দেবর ভাবী লাপাত্তা!

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২৩ আগস্ট , ২০১৬ সময় ১১:৪৮ অপরাহ্ণ

দেবর ভাবী লাপাত্তা!সেলিম উদ্দিন, কক্সবাজার প্রতিনিধি; পরকীয়া আসক্ত দুই সন্তানের জননী দেবরের সাথে লাপাত্তা হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। দুই শিশু সন্তান আদর-সোহাগসহ নগদ ৩৫ হাজার টাকা ৩ ভরি স্বর্ণ লক্ষাধিক টাকার মূল্যবান কাপড় চোপড় নিয়ে দেবরের সাথে উধাও হওয়ার ঘটনায় নিরহ স্বামী আদালতের সরনাপন্ন হয়েছেন। এ ঘটনায় এলাকায় তুলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, চকরিয়া পৌরসভার ভাঙ্গারমুখ এলাকার মোহাম্মদ ওসমানের পুত্র জাফর আলমের সাথে কাকারা ইউনিয়নের সাকের মোহাম্মদ চর গ্রামের আবদুস ছালামের কন্যা রুবি আকতারের সাথে বিগত এক যুগ পূর্বে শরীয়ত মতে বিবাহ হয়। বিবাহের পর স্বামী জাফর আলম স্ত্রীকে নিয়ে ভাঙ্গার মূখ এলাকায় হানিফের ভাড়া বাসায় বসবাস করে আসছিলেন। এর মধ্যে তাদের ঘরে দুটি সন্তান জন্ম লাভ করেন। তারা হলো আইয়ুব ইসলাম আদর (৮) ও সাইদুল ইসলাম সোহাগ (৬)। ইত্যবসরে জাফর আলমের চাচাতো ভাই উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের গর্জনতলীর সোলতান বৈদ্যের পুত্র মোহাম্মদ সুলাইমানের সাথে রুবি আকতার পরকিয়ায় জড়িয়ে পড়েন। বিষয়টি স্বামী জাফর আলম আচ করতে পেরে বেশ কয়েকবার নিষেধও করেন। জাফরের অনুপস্থিতিতে সোলাইমান তাদের বাসায় যাতায়ত করেন। এ সুযোগে গত ৫ জুলাই রাত অনুমানিক ৮ টার সময় নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ও মূল্যবান কাপড় চোপড়সহ দুই সন্তান নিয়ে সোলাইমানের খুটাখালীর বাড়িতে অবস্থান নেয়। খবর পেয়ে জাফর পরদিন স্ত্রী সন্তানের খোঁজে খুটাখালীতে গেলে তার পিতা সোলতান বৈদ্য তাকে মারধরের হুমকি দেয়। এ ঘটনায় তিনি বাদী হয়ে বিজ্ঞ সিনিয়র জুড়িশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে গত ৯ আগষ্ট ৩ জনকে আসামী করে একটি ফৌজদারী মামলা দায়ের করেন। মামলা নং সিআর- ৮৭৫/১৬। এতে আসামীরা হলেন, খুটাখালী ইউনিয়নের গর্জনতলী গ্রামের সোলতান বৈদ্যের পুত্র মো: সোলাইমান (২৬) ,মৃত আবদুর রহমানের পুত্র মো: সোলতান প্রকাশ সোলতান বৈদ্য (৫৫) ও কাকারা ইউনিয়নের সাকের মোহাম্মদ চর গ্রামের আবদুস ছালামের কন্যা রুবি আকতার (২৭)। মামলাটি বর্তমানে চকরিয়া থানায় তদন্তাধিন রয়েছে।