দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি ও সুরক্ষার কিছু উপায়

প্রকাশ:| সোমবার, ৩০ ডিসেম্বর , ২০১৩ সময় ১১:৩১ অপরাহ্ণ

images20১) দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি করার জন্য উত্তম খাবার :
খাবার দিয়ে শুরু আপনার চোখ রক্ষার প্রথম ধাপ। ওমেগা -৩, ফ্যাটি এসিড, লুটেন, জিংক, ভিটামিন সি ও ই ইত্যাদি দৃষ্টি হ্রাস এবং ছানি ছাড়াও বয়স সংক্রান্ত দৃষ্টি সমস্যা সমাধানে সাহায্য করতে পারে। নিয়মিত পাতা কপি, গাজর, সবুজ শাক সবজি, তৈলাক্ত মাছ, ডিম , বাদাম , মটরশুটি , কমলালেবু এবং অন্যান্য লেবু জাতীয় ফল বা রস এই খাবার গুলো খেলে চোখের স্বাস্থ্য উন্নতিতে সাহায্য করে। ডায়াবেটিস প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে অন্ধত্ব অন্যতম কারণ। তাই টাইপ ২ ডায়াবেটিস হিসাবে স্থূলতা সম্পর্কিত রোগের পেতে আপনি কম , যার ফলে একটি সুস্থ ওজন, বজায় রাখতে সাহায্য করে।

২) ভাল দৃষ্টিশক্তির জন্য ধূমপান বর্জন :
ধূমপান ছানি , অপটিক নার্ভ ক্ষতি, এবং দৃষ্টি হ্রাস করে। তাই সুস্থ দৃষ্টিশক্তির জন্য ধূমপান বর্জন অপরিহার্য।

৩) দৃষ্টিশক্তির সুরক্ষায় সানগ্লাস :
সূর্যের অতিবেগুনী রশ্মি চোখের মারাত্মক ক্ষতি করে থাকে। অতিবেগুনী রশ্মির কারণে ছানি এবং দৃষ্টি হ্রাসের সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়। এর থেকে রক্ষা পেতে সানগ্লাস পড়া ছাড়া কোন উপায় নেই।
সানগ্লাস ১০০% থেকে ৯৯% ভাগ অতিবেগুনী রশ্মি প্রতিরোধ করে এমন দেখে বাছাই করা উচিৎ।

৪) চোখে সুরক্ষা চশমা বা গগল্‌স ব্যবহার :
ঝালাইয়ের কাজ বা চোখের জন্য বিপজ্জনক কোন উপকরণ নিয়ে কাজ করার সময় নিরাপত্তা চশমা বা প্রতিরক্ষামূলক গগল্‌স প্রতি সময় ব্যবহার করা উচিৎ।
এইসব চোখ সুরক্ষা চশমা পলিকার্বনেট লেন্স দ্বারা তৈরি প্রতিরক্ষামূলক মুখোশ বা হেলমেট হিসাবে পাওয়া যায়।

৫) সুস্থ দৃষ্টিশক্তির জন্য কম্পিউটার ব্যবহারে সতর্কতা :
অবিরত কম্পিউটার ব্যবহারের ফলে চোখ ব্যথা, ঝাপসা দৃষ্টি, শুকনো চোখ, মাথাব্যাথা, ঘাড় , পিঠ ও কাঁধে ব্যথা ইত্যাদি উপসর্গ দেখা দেয়।
নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি গ্রহণ করে আপনার চোখের স্বাস্থ্য রক্ষা করুন : কম্পিউটার ব্যবহারের জন্য পর্যাপ্ত চশমা বা কনট্যাক্ট লেন্স ব্যবহার করতে হবে। চোখ মনিটরের সঙ্গে একই স্তরে অর্থাৎ কম্পিউটারের সাথে সমান্তরাল অবস্থান রাখতে হবে।
প্রতি ২০ মিনিট পর পর ২০ সেকেন্ডের জন্য ২০ফুট দূরে তাকিয়ে থাকতে হবে যাতে চোখ বিশ্রাম পায়।
অন্তত প্রতি দুই ঘন্টায় একটি ১৫ মিনিটের বিরতি নিতে হবে।

৬) পড়ালেখার কাজে পর্যাপ্ত আলো ব্যবহার :
পড়ালেখার খেয়াল রাখতে হবে যেন অন্ধকার পরিবেশে চোখ ক্ষতিগ্রস্থ না হয়। তাই পড়ালেখার কাজে পর্যাপ্ত আলো ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে।


আরোও সংবাদ