দুর্দান্ত ছিলেন সাকিব আল হাসান

প্রকাশ:| শুক্রবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি , ২০১৭ সময় ০৯:১০ অপরাহ্ণ

চলমান পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) ১৬তম ম্যাচে আফ্রিদি-স্যামি-হাফিজ-সাকিব-তামিমের পেশোয়ার জালমি ম্যাককালাম-ইলিয়ট-নারাইনদের লাহোর ক্যালেন্ডার্সকে ১৭ রানে হারিয়েছে। ম্যাচে তামিম ইকবাল ব্যাট হাতে ব্যর্থ হলেও ব্যাটে-বলে দুর্দান্ত ছিলেন সাকিব আল হাসান।

টস জিতে আগে ব্যাট করা পেশোয়ার নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে তোলে ১৬৬ রান। জবাবে, ৯ উইকেট হারানো লাহোর ১৪৯ রান তুলতে সক্ষম হয়।

পেশোয়ারের ওপেনার তামিম ৩ বলে একটি চারের সাহায্যে ৫ রান করে বিদায় নেন। আরেক ওপেনার কামরান আকমলের ব্যাট থেকে আসে ইনিংস সর্বোচ্চ ৫৮ রান। তার ৪০ বলের ইনিংসে ছিল ৯টি চারের মার। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩০ রান করেন সাকিব। ২৪ বলে দুটি বাউন্ডারি আর একটি ওভার বাউন্ডারিতে সাকিব তার ইনিংসটি সাজান।

১৩ রান করেন মোহাম্মদ হাফিজ। ১৭ রান আসে মারলন স্যামুয়েলসের ব্যাট থেকে। ১০ রান করে বিদায় নেন শহীদ আফ্রিদি। ১৭ রানে অপরাজিত থাকেন দলপতি ড্যারেন স্যামি।

লাহোরের হয়ে ৪ ওভারে ১৯ রান খরচায় দুটি উইকেট পান ইয়াসির শাহ। একটি করে উইকেট নেন সোহেল তানভীর, আমির ইয়ামিন, সুনীল নারাইন।

১৬৭ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে লাহোরের ওপেনার ক্যামেরন দেলপোর্ট ৩২ রানে বিদায় নেন। আরেক ওপেনার ব্রেন্ডন ম্যাককালাম ৬ রানে সাজঘরে ফেরেন। তিন নম্বরে নামা ফাখার জামান শূন্য রানে বিদায় নেন।

দলীয় পঞ্চম ওভারে বোলিং আক্রমণে আসেন সাকিব। নিজের প্রথম বলেই তুলে নেন উমর আকমলকে। এলবির ফাঁদে পড়ে বিদায় নেওয়ার আগে উমর আকমল করেন ১ রান। দ্বিতীয় ও তৃতীয় বলে কোনো রান নিতে পারেননি গ্রান্ট ইলিয়ট। চতুর্থ বলেই সাকিবের ঘূর্ণিতে পরাস্ত হয়ে সাজঘরে ফেরেন এলবির ফাঁদে। পঞ্চম বলে সুনীল নারাইনকে স্ট্যাম্পিংয়ের ফাঁদে ফেলেছিলেন সাকিব। তবে, সেটিতে ব্যর্থ হন কামরান আকমল। ষষ্ঠ বলে কোনো রান দেননি সাকিব। ফলে, নিজের প্রথম ওভারেই কোনো রান খরচ না করে দুই উইকেট তুলে নেন টাইগার অলরাউন্ডার।

১৪ বলে ২১ রান করে বিদায় নেন নারাইন। ২৫ রানে ফেরেন আমির ইয়ামিন। শেষ দিকে সোহেল তানভীর করেন অপরাজিত ৩৬ রান। তার ২৯ বলের ইনিংসে ছিল ২টি চার ও ২টি ছক্কা। ব্যক্তিগত ২২ রানে শেষ ওভারে বিদায় নেন ইয়াসির শাহ।

পেশোয়ারের হয়ে ২ ওভার বল করে সাকিব দুই উইকেট তুলে নেন ১৪ রান খরচায়। হাফিজ ৩ ওভারে ২৫ রান দিয়ে নেন দুই উইকেট। একটি করে উইকেট পান হাসান আলি, ওয়াহাব রিয়াজ ও ড্যারেন স্যামি। ৪ ওভারে ২১ রান দিয়ে একটি উইকেট পান আফ্রিদি।